শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৯

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দিল্লি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মেঘালয় সফর বাতিল

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দিল্লি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মেঘালয় সফর বাতিল

তিন দিনের সফরে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি যাওয়ার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে তা বাতিল করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। দ্য ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশনের (আইওরা) সম্মেলনে যোগ দিতে গতকাল দুপুরে তার দিল্লি যাওয়ার কথা ছিল। এ সম্মেলনের ফাঁকে দিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্করের সঙ্গেও বৈঠক হওয়ার কথা ছিল আবদুল মোমেনের। দুই মন্ত্রীর বৈঠকে এনআরসি (ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের জাতীয় নাগরিকপঞ্জি), সামরিক সরঞ্জাম ক্রয়, সমুদ্রসীমায় রাডার স্থাপন সংক্রান্ত এজেন্ডা ছিল। কিন্তু গতকাল সকালে সে সফর বাতিলের কথা জানা যায়। ভারতের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসকে কেন্দ্র করে এক ধরনের অস্বস্তি সৃষ্টি হওয়ায় এ সফর বাতিল হওয়ার খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় একাধিক মিডিয়া। এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানও তার মেঘালয় সফর বাতিল করেছেন। তবে ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন গতকাল দুপুরে সাংবাদিকদের বলেন, ডিসেম্বর আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ মাস। সামনে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং জাতীয় দিবস। এ দুটি জাতীয় দিনে আমি আমার দেশে, দেশের মানুষের সঙ্গে থাকতে চাই। এ জন্যই সফরটি বাতিল করেছি। আগামী মাসে সফরটি আবার হবে। এ ছাড়া আমাদের প্রতিমন্ত্রীও মাদ্রিদ সফরে রয়েছেন। সচিব সাহেবও রোহিঙ্গাবিষয়ক শুনানিতে অংশ নিতে নেদারল্যান্ডস অবস্থান করছেন।

ঢাকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা বলছেন, পূর্বনির্ধারিত এ সফরটির সময়সূচি ঠিক করার আগে ঢাকার পক্ষ থেকে নয়াদিল্লিকে জানান হয়েছিল যে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং জাতীয় দিবসে বাংলাদেশে থাকতে চান। তাই তার বৈঠকের সময়সূচি যেন এমনভাবে ঠিক করা হয় যাতে তিনি নয়াদিল্লিতে বৈঠক শেষ করে এ অনুষ্ঠানগুলোতে সহজে যোগ দিতে পারেন। তবে ভারতের গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, পূর্বনির্ধারিত সফর বাতিল নিয়ে ঢাকার পক্ষ থেকে খোলামেলা কিছু বলা হয়নি। তবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যুতে বেশ কয়েক দিন ধরেই ঢাকা অস্বস্তি প্রকাশ করছিল। কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ভারতের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার পূর্বনির্ধারিত তিন দিনের ভারত সফর বাতিল করেছেন। বিলটি পাস হওয়ায় ভারতের আসামসহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একাধিক রাজ্যে বিক্ষোভ এবং অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। সফর বাতিল হওয়ার এটাও অন্যতম একটি কারণ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মেঘালয় সফর স্থগিত : ভারতের মেঘালয় রাজ্য সফরের কর্মসূচি বাতিল করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। মেঘালয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমানের আমন্ত্রণে আজ শুক্রবার তার সেখানে যাওয়ার কথা ছিল। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা (পিআরও) শরীফ মাহমুদ অপু গতকাল রাতে এ ব্যাপারে জানান, মন্ত্রীর সফরটি স্থগিত করা হয়েছে। তবে সফর স্থগিতের কোনো কারণ উল্লেখ না করে অপু জানান, পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেঘালয় সফর করবেন। এ সফর জানুয়ারি অথবা ফেব্রুয়ারি মাসে হতে পারে। এ সফরে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক কয়েকটি অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অংশগ্রহণের কথা ছিল।

ভারতের বক্তব্য : আমাদের নয়াদিল্লি প্রতিনিধি গৌতম লাহিড়ী জানান, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার গতকাল তার সাপ্তাহিক ব্রিফিংকালে বলেন, বাংলাদেশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের ভারত সফর বাতিল হওয়ার সঙ্গে ভারতীয় সংসদে নাগরিক আইন পাস হওয়ার কোনো সম্পর্ক নেই। এর বড় প্রমাণ হলো, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাাহ নিজেই সংসদে বলেছেন বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের রক্ষা করার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু হত্যার পর থেকে হাসিনা সরকার আসা পর্যন্ত সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার হয়েছে। তারাই ভারতে চলে এসেছেন। তাদেরই নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এও বলেছেন, বর্তমান বাংলাদেশ সরকার সংখ্যালঘুদের স্বার্থ রক্ষা করার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছেন এবং সংখ্যালঘু প্রতিষ্ঠান রক্ষাতেও ব্যবস্থা নিয়েছেন। কিন্তু তার আগে যেসব হিন্দু চলে এসেছেন তাদের নাগরিক করার জন্যই আইন আনা হয়েছে। মুখপাত্র বলেন, বাংলাদেশ সরকার জানিয়েছে ড. মোমেন ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে থাকবেন। এদিকে দিল্লিতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিসন ও এক বিবৃতিতে জানায়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী হত্যার স্মরণ দিবস পালনে ব্যস্ত থাকবেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর