শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৪৪

আগাম ভোটের রেকর্ডে বিস্ময় আমেরিকাজুড়ে

তানভীর আহমেদ

আগাম ভোটের রেকর্ডে বিস্ময় আমেরিকাজুড়ে

যুক্তরাষ্ট্রের ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগাম ভোটের রেকর্ড গড়েছেন ভোটাররা। গতকাল পর্যন্ত প্রায় ৫ কোটি ৭০ লাখ আগাম ভোট পড়েছে। খবর বিবিসির। যুক্তরাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বড় ফ্যাক্টর। এ মহামারীতে দেশটিতে এরই মধ্যে ২ লাখ ২১ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। করোনার সংক্রমণ ফের ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জো বাইডেন ও সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ভোটাররাও করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়াকে ট্রাম্প প্রশাসনের চরম ব্যর্থতা হিসেবে দেখছেন। কিন্তু ট্রাম্প বলছেন অন্য কথা। ট্রাম্প নির্বাচনী প্রচারণায় বলেন, ‘বেশি করোনা পরীক্ষা করা ভালো এবং একই সঙ্গে বোকামি। এতে শুধু রোগীর সংখ্যা বাড়ে।’

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে গত ১১২ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোট পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত মোট ৫ কোটি ৭২ লাখ ৮৩ হাজার ৭৬৪ জন আগাম ভোট দিয়েছেন। এর মধ্যে ডাকে পাঠিয়েছেন ৩ কোটি ৯৩ লাখ ৮৯ হাজার ৬২২ জন এবং স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে ভোট দিয়েছেন ১ কোটি ৭৮ লাখ ৯৪ হাজার ১৪২ জন। প্রাপ্ত ভোটের পর্যালোচনায় অধিকাংশই বাইডেন-হ্যারিসের বলে উল্লেখ করা হলেও ট্রাম্প-পেন্সের ভোটাররাও দলে দলে ভোট দিচ্ছেন। গত শনিবার ফ্লোরিডায় ওয়েস্ট পামবিচে ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেও আগাম ভোট দিয়েছেন। অথচ তিনি নিজে বারবার ডাকযোগে এবং আগাম ভোট নিয়ে কারচুপির অভিযোগ করে আসছেন। ভোট দেওয়ার পর ট্রাম্প প্রকাশ্যে বলেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প নামের একজনকে ভোট দিয়েছি।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভোট দেওয়ার সময় তার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে দেখা যায়নি। সিএনএন জানিয়েছে, আগাম ভোট দেবেন না মেলানিয়া ট্রাম্প। আগামী ৩ নভেম্বর তিনি ভোট দেবেন। দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়ানোর প্রচেষ্টায় অনেক অঙ্গরাজ্যই আগাম ভোট ও ডাকযোগে ভোটদানের মেয়াদ বাড়িয়েছে। এবারের নির্বাচনে প্রায় ১৫ কোটি মানুষ ভোট দিতে পারেন। আর এটি হলে তা হবে বৈধ ভোটারের ৬৫ শতাংশ, যা ১৯০৮ সালের পর থেকে সর্বোচ্চ।

টাইমস স্কয়ারে ট্রাম্পবিরোধী বিজ্ঞাপন : নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে ঝুলছে ডোনাল্ড ট্রাম্পবিরোধী বিজ্ঞাপন চিত্র। বিলবোর্ডের ওই বিজ্ঞাপনে দেখা যাচ্ছে, কভিড-১৯ এ সংক্রমিত হয়ে নিউইয়র্ক ও যুক্তরাষ্ট্রের মৃত্যু নিয়ে হাসছেন ইভানকা ট্রাম্প। পাশে তার স্বামী জারড কুশনারও হাসছেন বিদ্রƒপের হাসি। লিঙ্কন প্রজেক্ট নামের রাজনৈতিক অ্যাকশন গ্রুপ এ বিলবোর্ড টাঙিয়েছে। এ নিয়ে ইভানকা ও জারড কুশনারের পক্ষ থেকে মামলার হুমকি দিয়ে উকিল নোটিস দেওয়া হয়েছে। নোটিসে বলা হয়েছে, এমন বিজ্ঞাপন চিত্রে তাদের ভাবমূর্তির ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। অবিলম্বে বিলবোর্ডটি অপসারণ করা না হলে মামলা করা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর