শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২১:৪৫

যত আয়োজন

যত আয়োজন

মুনসের নতুন শো-রুম

বনানী ১১ নম্বরে একটি আউটলেটের মাধ্যমে ২০০৭ সালে যাত্রা শুরু করে মুনস। অল্প সময়ের মধ্যেই ক্রেতাদের মধ্যে সাড়া জাগায় মুনস। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার নাসরিন জাহান মুনমুনের হাত অভিনব এবং নিত্যনতুন ডিজাইন প্রতিষ্ঠানটিকে অন্যদের থেকে আলাদা করে তুলেছে। আর বনানী ১১ নম্বরেই এইচ ব্লক ৪৭ নম্বর ভবনে মুনসের নতুন একটি শো-রুমের উদ্বোধন করা হয়েছে। শীত এবং নতুন বছরকে সামনে রেখে এই শো-রুমটি একেবারে ভিন্ন সাজে সেজেেেছ। শাড়ি, কামিজ, আনস্ট্রিচ, লেহেঙ্গা, ওয়েস্টার্ন ড্রেস, টপস এবং সব ধরনের বুটিক পণ্যসহ মুনসে ক্রেতারা পাচ্ছেন পরিপূর্ণ লাইফস্টাইল সলিউশন। মুনসের নিজেদের ফ্যাক্টরিতেই তৈরি হচ্ছে বিশ্বমানের জামদানি, মসলিন, সুতি, সিল্ক কাপড়ের নানা ধরনের ডিজাইন। আর এগুলো দিয়ে তৈরি হচ্ছে শাড়ি, কামিজ, আনস্ট্রিচ, ওয়েস্টার্ন ড্রেস। নতুন শো-রুম এবং মুনসের কালেকশন প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানের  কর্ণধার নাসরিন জাহান মুনমুন বলেন, ‘শিগগিরই আমরা আমাদের আরও নতুন অউটলেট খুলছি। ক্রেতাদের কাছ থেকে দারুণ সাড়া পেয়েছি। আর আমরা বাংলাদেশের বুটিক পণ্য ও ফ্যাশন পণ্যকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছি।’

রাইজের চতুর্থ আউটলেট 

বাংলাদেশের সর্বপ্রথম স্ট্রিট ওয়্যার ফ্যাশন ব্র্যান্ড রাইজের চতুর্থ আউটলেটের যাত্রা শুরু করেছে এশিয়ার বৃহত্তর শপিং মল যমুনা ফিউচার পার্কে। সম্প্রতি দেশের ৩০ জন স্বনামধন্য মডেল তারকা এবং অন্যতম শীর্ষ ফ্যাশন কোরিওগ্রাফার নিয়ে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিকমানের স্ট্রিট ওয়্যার ফ্যাশন শো আয়োজন করল রাইজ। ব্র্যান্ডটির মার্কেটিং ম্যানেজার নাজিউর রহমান বলেন, ‘রাইজ স্ট্রিট ওয়্যার ফ্যাশন হলেও আমরা দেশের সর্বস্তরের প্রয়োজন অনুযায়ী যে কোনো উৎসবে মানানসই পোশাক পৌঁছে দিচ্ছি। আমাদের প্রত্যেকটি পণ্য গুণগত মানসম্মত এবং সাশ্রয়ী’।

রঙ বাংলাদেশের বিজয়োৎসব

ডিসেম্বর, বাঙালির অনন্য অহঙ্কারের মাস। বিজয় গৌরবে মেতে ওঠার উপলক্ষ। বিজয়ের উদযাপনকে অন্য মাত্রা দিতে বিশেষ ব্যবস্থা করেছে রঙ বাংলাদেশ। মূল রং হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে লাল ও পতাকার সবুজ আর সহকারী রং হিসেবে আছে সবুজের শেড, সাদা, টিয়া, গোল্ডেন, হলুদ। পোশাকের নকশাকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে নানা ভ্যালু অ্যাডেড মিডিয়ার ব্যবহারে। এর মধ্যে রয়েছে স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক প্রিন্ট, এম্ব্রয়ডারি, হাতের কাজ, গ্লাসওয়ার্ক, ইত্যাদি। এ ছাড়াও রঙ বাংলাদেশের সাব ব্র্যান্ড হিসেবে ওয়েস্ট রঙ, শ্রদ্ধাঞ্জলি আর রঙ জুনিয়রের পোশাকেও রয়েছে বিজয় উৎসবের আমেজ।

গৃহকে লাবণ্যময় করবে সাতোরী

নান্দনিকতা প্রকাশে ঘর হয়ে ওঠে সুখী গৃহকোণ।  এ লক্ষ্যেই ঢাকার প্রথম হোম ডেকর উদ্যোগ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিল স্টোর সাতোরী। আর এবার সাম্প্রতিক সময়ে আরও বড় পরিসরে বনানীতে চালু হয়ে গেল লাক্সারি হোম ডেকরের এক নতুন ঠিকানা লুমীয়ার। আধুনিক, রুচিশীল ও নান্দনিকতার এক অনন্য বৈশিষ্ট্যে সুসজ্জিত সাতোরীর নতুন ব্রাঞ্চ লুমীয়ার। সাতোরী লুমীয়ারে রয়েছে লিভিং রুমের মৃদু আলোর ঝাড়বাতি আর নিভু নিভু আলোর রশ্মির জন্য রয়েছে ক্যান্ডেলের বৈচিত্র্যময় সমাহার। এখন থেকে প্রতিদিন, সকাল-সন্ধ্যা স্বপ্নপূরণের উপাদান সঙ্গে নিয়ে বনানীতে প্রস্তুত থাকছে লুমীয়ার।


আপনার মন্তব্য