শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:৫৯

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে অনশনের ডাক আসাম গণপরিষদের

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে অনশনের ডাক আসাম গণপরিষদের

ভারতের নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইন-২০১৬ নিয়ে বিজেপি জোট থেকে সরে যাওয়ার পর নতুন করে এ নিয়ে সরব হয়েছে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল আসাম গণপরিষদ (এজিপি)। দলটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে এ বিলের প্রতিবাদে অনশন ধর্মঘটে যাবে তাদের এমএলএ বা বিধায়করা। সোমবার এজিপি জানিয়েছে, আগামী ২৪ জানুয়ারি তাদের ১২ জন বিধায়ক ১০ ঘণ্টার অনশন ধর্মঘট পালন করবেন। নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আন্দোলনকারী অন্য দলগুলোর সঙ্গে যোগ দেবেন তারা। নাগরিকত্ব বিল নিয়ে আপত্তি জানিয়ে আসামে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) জোট থেকে এরই মধ্যে বেরিয়ে গেছে এজিপি। লোকসভায় বিলটি উত্থাপন ও পাসের আগের দিন ৭ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন দলটির তিন সদস্য। বিলটিতে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ভারতে প্রবেশকারী অমুসলিমদের (হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি, শিখ ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়) নাগরিকত্বের বিধান রাখা হয়েছে। বিরোধীরা বলছে, এই আইনটি ১৯৮৫ সালের আসাম অ্যাকর্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। ১৯৮৫ সালের আসাম অ্যাকর্ডে বলা হয়েছিল, ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চ থেকে যারা আসামে বাস করছে, তারাই শুধু নাগরিকত্ব পাবে। কিন্তু বিল নিয়ে আসামে তীব্র প্রতিবাদ রয়েছে। রাজ্যের ছয়টি জাতিগত গোষ্ঠীকে শিডিউলড ট্রাইব (তফসিলি উপজাতি) হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাবের বিরোধিতা করে ১১ জানুয়ারি বনধ পালন করছে স্থানীয় আদিবাসী সংগঠনগুলো। আর মনিপুরে খোদ স্থানীয় বিজেপির পক্ষ থেকে এই বিলের বিরুদ্ধে আওয়াজ উঠেছে। ডেকান হেরাল্ড।

এদিকে বিজেপি থেকে নির্বাচিত আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সানোয়ালকে দলত্যাগের আহ্বান জানিয়েছে কংগেও্রস। দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সর্বানন্দ সানোয়াল বিজেপি ছাড়লে কংগ্রেস তাকে মুখ্যমন্ত্রীর পদে বহাল রাখবে। আসামে কংগ্রেসের পার্লামেন্টারি দলের নেতা দেবব্রত সাইকিয়া বলেন, সানোয়াল যদি অন্তত ৪০ জন বিধায়ককে নিয়ে আসতে পারেন তাহলে আমরা তাকে নতুন করে রাজ্য সরকার গঠনে সমর্থন দেব। ডেকান হেরাল্ড।


আপনার মন্তব্য