শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:৪১

নাগরিকত্ব কেড়ে নিতে নয় বরং দিতে এই আইন : মোদি

কলকাতা প্রতিনিধি

নাগরিকত্ব কেড়ে নিতে নয় বরং দিতে এই আইন : মোদি

নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার জন্য নয় বরং নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (ক্যা) আনা হয়েছে বলে ফের মন্তব্য করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল পশ্চিমবঙ্গের বেলুড় মঠে যুব দিবসের অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন মোদি। তিনি বলেন ‘গত কয়েকদিন ধরেই দেশ্জুড়ে যুব সমাজের মধ্যে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রশ্নÑ এই আইন নিয়ে আসার কি প্রয়োজনীয়তা ছিল? যুব সমাজের মনে অনেক প্রশ্ন ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের সঠিক বোঝানো, সন্তুষ্ট করার দায়িত্ব আমাদের।’ মোদির অভিমত, ‘স্বাধীনতার পর জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীসহ অনেক বড় বড় পন্ডিত, বিদ্বজনরা বলেছিলেন ধর্মীয় কারণে পাকিস্তানে যেসব মানুষের ওপর অত্যাচার নেমে এসেছিল ভারতে এসব নাগরিককে নাগরিকত্ব দেওয়া উচিত। আমরা কেবলমাত্র গান্ধীজির সেই ইচ্ছা পূরণ করেছি। উনি যেটা বলেছেন সেই কাজটাই আমরা করছি।’ নাম না করেই কংগ্রেস-তৃণমূলসহ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে নিশানা করে মোদি বলেন, ‘আপনারা সব ছোট ছোট শিক্ষার্থীরাও এই আইনের ব্যাপারটি বুঝে গেছেন, অথচ যারা রাজনীতি করছেন তারা এখনো বোঝার চেষ্টাই করছেন না। কিছু কিছু মানুষ রাজনীতির কারণে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে লাগাতার বিরোধিতা করে আসছেন।’

ক্যা ইস্যুতে পাকিস্তানকে তোপ দেগে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যদি এই আইনে সংশোধন না আনতাম, তবে বিশ্ জানতই না যে পাকিস্তানে বসবাসকারী অন্য ধর্মের মানুষের প্রতি কীভাবে অত্যাচার হচ্ছে, মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে, মা-বোনদের জীবন বরবাদ করা হচ্ছে। এবার পাকিস্তানকেও জবাব দিতে হবে যে ৭০ বছর থেকে সেখানে সংখ্যালঘুদের ওপর কেন অত্যাচার হচ্ছে।’ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে কংগ্রেস, সিপিআইএম, তৃণমূলসহ বিরোধী দলগুলো বেশ্ কিছু দিন ধরে লাগাতার বিক্ষোভ, আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। এই আন্দোলনে বিরোধীদের মুখপাত্র হয়ে দাঁড়িয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। গত মাসে এই বিক্ষোভ আন্দোলন কোথাও কোথাও সহিংসতার চেহারা নিয়েছে।


আপনার মন্তব্য