শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০৪

করাচির ঘটনায় পাকিস্তানে ‘রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে রাষ্ট্র’ অবস্থা স্পষ্ট : মরিয়ম

প্রতিদিন ডেস্ক

করাচির ঘটনায় পাকিস্তানে ‘রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে রাষ্ট্র’ অবস্থা স্পষ্ট : মরিয়ম

পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ-এর সহসভাপতি মরিয়ম নওয়াজ বলেছেন, করাচি নগরীতে ১৯ অক্টোবর যা ঘটল তাতে স্পষ্ট হয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সেই মন্তব্য- দেশে এখন ‘রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে রাষ্ট্র’ অবস্থা চলছে। পাকিস্তানি দৈনিক ‘ডন’ জানায়, ১৯ অক্টোবর সকালে করাচির একটি হোটেল রুম থেকে তার স্বামী মোহাম্মদ সফদারকে গ্রেফতারের সময় পুলিশ যে অশোভন আচরণ করে, মরিয়ম সে প্রসঙ্গে কথা বলছিলেন। সেনাবাহিনীর ইঙ্গিতে কেন্দ্রীয় সরকার উঠবস করছে বোঝাতে গিয়ে গত মাসে নওয়াজ শরিফ বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে যারা ক্ষমতায় বসিয়েছে তারাই এখন রাষ্ট্র। আগে প্রবচন ছিল- রাষ্ট্রের মধ্যে আরেক রাষ্ট্র। এখন বলা যায়, রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বে আরেক রাষ্ট্র। তিনি বলেন, সমান্তরাল দুটি সরকার চলছে। মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছে। দেশের জন্য এটা অশুভ। সম্প্রতি গঠিত বিরোধীদলীয় জোট পিডিএম ১৮ অক্টোবর করাচিতে বিরাট সমাবেশ করে। সমাবেশের বক্তারা ইমরান খানের পুতুল সরকারকে অবিলম্বে পদত্যাগ করার দাবি জানান। পরদিন সকালে সফদারের হোটেল রুমে তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ হানা দেয়।

মরিয়ম নওয়াজ বলেন, কামরায় আমিও ছিলাম। গ্রেফতারি পরোয়ানা ছিল সফদারের নামে। তাহলে পুলিশ কেন আমার প্রাইভেসি লঙ্ঘন করে ঢুকে পড়ল? এখন আর্মি চিফ আর সিন্ধু সরকার বলছে, ‘ঘটনার তদন্ত হবে।’ তদন্তের তো দরকার নেই। সবাই জানে কেন কারা কী ঘটিয়েছে।

সফদারকে গ্রেফতার করা নিয়ে সিন্ধু পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) মুশতাক মেহেরকে অপমানের প্রতিবাদে পুলিশের প্রায় সব অফিসার ছুটির দরখাস্ত করেছেন। মরিয়ম নওয়াজের মুখপাত্র মুহাম্মদ জুবায়ের জানান, সফদারকে গ্রেফতারের জন্য এফআইআর দাখিল করতে বাধ্য করার উদ্দেশ্যে আইজিপি মুশতাককে রেঞ্জারদের দিয়ে ‘অপহরণ’ করা হয়েছিল।


আপনার মন্তব্য