শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৬

ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চাওয়ার অভিযোগে মমতাকে নোটিস

ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চাওয়ার অভিযোগে মমতাকে নোটিস

মমতা ব্যানার্জিকে নোটিস দিল নির্বাচন কমিশন। ধর্মের ভিত্তিতে সংখ্যালঘু ভোট চাওয়ার অভিযোগে তাঁকে নোটিস দেওয়া হয়েছে। বুধবার এই নোটিস পাঠায়  কমিশন। মমতাকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নোটিসের জবাব দিতে হবে। গত ৩ এপ্রিলের ঘটনা। তারকেশ্বরের সভায় বিজেপিকে রুখতে সংখ্যালঘু ভোট যাতে ভাগ না হয়, তার আবেদন করেছিলেন মমতা। তিনি বলেছিলেন, ‘বিজেপি এলে মনে রাখবেন, সমূহ বিপদ। সব চেয়ে বেশি বিপদ আপনাদের।’ শুধু এটুকুই নয়, ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট বা আইএসএফ নেতা আব্বাস সিদ্দিকির নাম না করে মমতা বলেছিলেন, ‘সংখ্যালঘু ভাইবোন, আপনাদের কাছে হাতজোড় করে বলছি, ওই ছেলেটা বেরিয়েছে বিজেপির টাকা নিয়ে, ওইটার কথা শুনে সংখ্যালঘু ভোট ভাগ করবেন না।’ এরপরই ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চাওয়ার অভিযোগে মমতা ব্যানার্জিকে বুধবার নোটিস দিয়েছে কমিশন। মমতার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি জনপ্রতিনিধি আইন ভঙ্গ করেছেন। জনপ্রতিনিধি আইন অনুসারে ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চাওয়া যায় না। রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে মেলানো যায় না। মমতাকে যে নোটিস পাঠিয়েছে কমিশন, তাতে জনপ্রতিনিধি আইন ও নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগের জবাব চাওয়া হয়েছে। নিয়মানুসারে, অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রার্থী পদ পর্যন্ত খারিজ করে দিতে পারে কমিশন। গত মঙ্গলবারই কোচবিহারে এসে মোদি বলেছিলেন, ‘মমতাদিদি জনসভায় যা বলেছেন, তা আমি বললে আমাকে এতদিনে নির্বাচন কমিশনের নোটিস পেতে হতো। সংবাদপত্রে আমাকে আক্রমণ করা হতো। আপনি বলেছেন, মুসলিমরা একজোট হয়ে ভোট দাও। আমি যদি বলতাম, হিন্দুরা জোট বেঁধে বিজেপিকে ভোট দিন, তা হলে কেমন হতো ভাবুন তো!’ এদিকে মমতাকে নোটিস দেওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তিনি টুইট করে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘বিজেপি যে টাকা বিলি করছে, ক্যাশ কুপন বিলি করছে, সেই অভিযোগের কী করল নির্বাচন কমিশন?’


আপনার মন্তব্য