শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৭

এভারেস্টেও পৌঁছে গেছে করোনা

ভারতে এবার আরও বিপজ্জনক ভাইরাস ‘ট্রিপল মিউট্যান্ট’

Google News

ভারতে প্রথমবারের মতো এক দিনে ৩ লাখের বেশি আক্রান্ত শনাক্তের বিশ্বরেকর্ড তৈরির পর জানা গেল করোনা এখন বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্টেও পৌঁছে গেছে। এ অবস্থায় আরও এক বিপজ্জনক খবর আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। ভারতে করোনাভাইরাসের ‘ডাবল মিউট্যান্ট’ আতঙ্ক কাটতে না কাটতেই এবার থাবা বসিয়েছে ‘ট্রিপল মিউট্যান্ট ভ্যারিয়্যান্ট।’ করোনা এভারেস্টে পৌঁছে যাওয়ার খবরে বলা হয়েছে, এভারেস্টে গিয়ে করোনার লক্ষণ দেখা দেওয়ায় এ মাসে তিনজন পর্বতারোহীকে হেলিকপ্টারযোগে বেস ক্যাম্প থেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। তার মধ্যে একজনের করোনা শনাক্ত হয়। তাকে কাঠমান্ডুর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ট্রিপল মিউট্যান্ট করোনাভাইরাস : এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গসহ দেশটির অন্তত চারটি রাজ্যে এ ভ্যারিয়্যান্ট শনাক্ত হয়েছে। বাকি রাজ্যগুলো হচ্ছে দিল্লি, মহারাষ্ট্র ও ছত্তিশগড়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কভিড-১৯ ভাইরাসের তিনটি আলাদা স্ট্রেইন মিলে তৈরি নতুন এ ভ্যারিয়্যান্টের সংক্রামক ক্ষমতাও প্রায় ৩ গুণ বেশি। শুধু বাড়তি সংক্রামক ক্ষমতাই নয়, বরং নতুন এ স্ট্রেইনে আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থারও দ্রুত অবনতি ঘটছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঠিক সময় লাগাম পরানো না গেলে এবার সংক্রমণ সুনামির আকার ধারণ করতে পারে।

তাদের মতে, ‘ডাবল মিউট্যান্ট’ স্ট্রেইন ঠিক সময়ে ধরা না যাওয়ার ফলেই হয়তো অগোচরে এতটা ছড়িয়ে পড়েছে এ ‘ট্রিপল মিউট্যান্ট।’ ভাইরাস যত ছড়ায় সেটির মিউটেশনের হারও তত বৃদ্ধি পায়। এ নয়া স্ট্রেইনটি শিশুদেরও সংক্রমিত করছে। তবে এখন পর্যন্ত এটি নিয়ে খুব বেশি তথ্য নেই বিজ্ঞানীদের কাছে। যে কারণে আপাতত ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন?’-এর বদলে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব ইন্টারেস্ট’-এর তালিকায় রাখা হয়েছে এটিকে।

এদিকে কয়েক দিন ধরে প্রায় প্রতিদিনই সংক্রমণের নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে ভারত। এক দিনে শনাক্তের দিক থেকে গতকাল বিশ্বরেকর্ড করেছে দেশটি। গতকাল সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আরও ৩ লাখ ১৪ হাজার ৮৩৫ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ভারতে তো বটেই, বিশ্বেও এই প্রথম কোনো একটি দেশে এক দিনে এত বেশিসংখ্যক মানুষের শরীরে ভাইরাসটি দেখা দিল। এর আগে এক দিনে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত শনাক্তের বিশ্বরেকর্ড হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে। জানুয়ারিতে দেশটি এক দিনে সর্বোচ্চ ২ লাখ ৯৭ হাজার ৪৩০ জন আক্রান্ত শনাক্তের কথা জানিয়েছিল। এবার তা ছাড়িয়ে গেল ভারত। এতে ভারতে মোট করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৫৯ লাখ ৩০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। শনাক্তের সংখ্যায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের পর বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে আছে দেশটি। একই দিন ভারতে কভিড-১৯জনিত মৃত্যুরও নতুন রেকর্ড হয়েছে, মারা গেছেন ২১০৪ জন। এতে দেশটিতে মহামারীতে মোট মৃত্যু ১ লাখ ৮৪ হাজার ৬৫৭ জনে দাঁড়িয়েছে বলে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যে দেখা গেছে। মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল ও মেক্সিকোর পরই ভারতের অবস্থান।

বিশ্বে শনাক্তের সংখ্যা ১৪ কোটি ৪৫ লাখ ছাড়িয়েছে : দুনিয়াজুড়ে করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ১৪ কোটি ৪৫ লাখ ছাড়িয়েছে। ওয়ার্ল্ডোমিটারস জানিয়েছে, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৯ দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা ১৪ কোটি ৪৫ লাখ ৩২ হাজার। এর মধ্যে ৩০ লাখ ৭৪ হাজার ১৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।