শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ জুন, ২০২১ ২৩:৪৯

ভারতে সামরিক স্থাপনায় ড্রোন হামলা

জম্মুতে বিমান বাহিনীর ঘাঁটিতে হামলার ঘটনায় দুজন গ্রেফতার

Google News

কাশ্মীরের জম্মুতে ভারতের বিমান বাহিনীর একটি ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করছে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এনআইএ। শনিবার মধ্য রাতে পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে এলাকাটি। ভারতের কোনো সেনা স্থাপনায় প্রথমবারের মতো মনুষ্যবিহীন উড়োজাহাজ বা ড্রোন থেকে হামলার ঘটনা এটি।  ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার রাতে জম্মু বিমানবন্দরের এয়ার ফোর্স স্টেশনে জোড়া বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। প্রথম বিস্ফোরণটি ঘটে রাত ১টা ৩৭ মিনিটে। এর ৬ মিনিট পর রাত ১টা ৪৩ মিনিটে দ্বিতীয় বিস্ফোরণের আওয়াজ শোনা যায়। একটি বিস্ফোরণে ওই স্টেশনের কারিগরি শাখার ছাদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অন্য বিস্ফোরণটি খোলা জায়গায় ঘটেছে। বিস্ফোরণে দুজন আহত হয়েছেন তারা হলেন বিমানবাহিনীর উইং অফিসার অরবিন্দ সিং এবং এয়ারক্রাফট ম্যান এস কে সিং। আঘাত গুরুতর না হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। বিস্ফোরণের ঘটনাটিকে নাশকতা মনে করছেন তদন্তকারীরা। তারা মনে করছেন, ঘাঁটিতে মোতায়েন করা ভারতীয় বিমান বাহিনীর যুদ্ধবিমান এবং হেলিকপ্টারগুলো নাশকতাকারীদের লক্ষ্য ছিল। কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনী উপেক্ষা করে এই ড্রোন হামলার পরেই উপত্যকায় সতর্কতা দ্বিগুণ বাড়িয়েছে ভারত সরকার। জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশ জানায়, বিস্ফোরণের পরপরই আরও একটি বোমার খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। কোনো জনবহুল এলাকায় এই বোমা রাখার পরিকল্পনা হয়তো ছিল নাশকতাধারীদের।

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের প্রধান দিলবাগ সিং বলেন, বিস্ফোরকবাহী ড্রোনের মাধ্যমে মধ্য রাতে হামলা চালানো হয়েছিল। এটা লস্কর-ই-তৈয়বা জঙ্গিগোষ্ঠীর কাজ বলে মনে করা হচ্ছে। জনবহুল এলাকায় বিস্ফোরণ ঘটানোর উদ্দেশ্য ছিল তাদের। তবে এএনআই বলছে, ঘটনাস্থলের পাশে একটি সামরিক উড়োজাহাজ রাখা ছিল। সেটিকে লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে। আর কলকাতাভিত্তিক সংবাদপত্র আনন্দবাজার জানিয়েছে, এ ঘটনায় সন্দেহভাজন দুজনকে আটক করা হয়েছে। তবে তাদের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নরভানের তিন দিনের লাদাখ সফর শুরুর আগে জম্মুতে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল। এর আগে গত বছরের ২০ জুন জম্মুর সীমান্তসংলগ্ন কাঠুয়া জেলায় ভারতীয় বিএসএফ একটি গুপ্তচর ড্রোন ভূপাতিত করেছিল।

গত সেপ্টেম্বরে জম্মুর আখনুরে একটি সন্দেহভাজন ড্রোন শনাক্ত করেছিল স্থানীয় পুলিশ।