শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুলাই, ২০২১ ২৩:৫৭

কিউবায় কয়েক দশকে সরকারবিরোধী বড় বিক্ষোভ

কিউবায় কয়েক দশকে সরকারবিরোধী বড় বিক্ষোভ
Google News

শেষ পর্যন্ত ফিদেল কাস্ত্রোর দেশ কিউবায় বিক্ষোভ শুরু করেছে সাধারণ মানুষ। এটা কয়েক দশকের মধ্যে কিউবার কমিউনিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ। সরকারকে স্বৈরাচার আখ্যা দিয়ে ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক’ স্লোগান দেন তারা। বিক্ষোভ হয়েছে রাজধানী হাভানাসহ বড় বড় শহরে। তবে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ অ্যাকশনে যায়।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, দেশে অর্থনীতি ধসে যাওয়ায় দেশবাসী ক্ষুব্ধ। একই সঙ্গে সেখানে নাগরিক স্বাধীনতায় বিধিনিষেধ রয়েছে বলে তাদের দাবি। করোনা মহামারী মোকাবিলায় সরকারের বিরুদ্ধে রয়েছে তাদের ক্ষোভ। কয়েক দিনে রেকর্ডসংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ-ক্যানেলের পদত্যাগ দাবি করেন।

গত বছর কিউবার রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত অর্থনীতির পতন হয় শতকরা ১১ ভাগ। তিন দশকের বেশি সময়ের মধ্যে এটাই সবচেয়ে বড় পতন। করোনা মহামারী ও যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেওয়া অর্থনৈতিক অবরোধ পরিস্থিতিকে আরও সঙ্গিন করে তুলেছে। ১৯৫৯ সালে কমিউনিস্ট বিপ্লবের মধ্য দিয়ে দেশটি কমিউনিস্ট শাসনে আসে। সে বিপ্লবকে সমর্থন জানাতে জাতির উদ্দেশে টেলিভিশনে বক্তব্য দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল ডিয়াজ-ক্যানেল। এর পরপরই সরকারপন্থি কয়েক হাজার সমর্থক রাজপথে বেরিয়ে পড়েন। প্রেসিডেন্ট তার বক্তব্যে বলেন, দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিতে দুর্বৃত্তদের ভাড়া করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তার এমন বক্তব্যের পর সমর্থকরা রাজপথে ঝাঁঝালো বিক্ষোভ করেন এবং বিপ্লবী সাড়া দেওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।