সোমবার, ২৩ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

মমতাকে ঘিরেই ‘কোর গ্রুপ’ চান শারদ ও উদ্ধব

মমতাকে ঘিরেই ‘কোর গ্রুপ’ চান শারদ ও উদ্ধব

মমতা ব্যানার্জি (ডানে) ও সোনিয়া গান্ধী

নরেন্দ্র মোদি হটাও। এই কর্মসূচিতে উদ্যোগী কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। লক্ষ্য ২০২৪-এর লোকসভা ভোটের আগেই বিজেপিবিরোধী বৃহত্তর জোট গঠন। সেই লক্ষ্যে যোগ দিয়েছে দেশটির ১৯টি বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীরা। তাদের সংকল্প, নিজস্ব বাধ্যবাধকতা ভুলে দেশ ও গণতন্ত্রের স্বার্থে বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হয়ে সারা দেশে আন্দোলন গড়ে তোলা। আর এই দলগুলোর অনেক নেতাই বলছেন আন্দোলন হবে। তবে কোনো একক দলের আধিপত্য নয়, সম্মিলিত বিরোধী জোটের ‘কোর গ্রুপ’ই নির্ধারণ করুক মোদি-শাহ জুটিকে গদিচ্যুত করার রণকৌশল। তৃণমূল প্রধান মমতা ব্যানার্জির ‘কোর গ্রুপ’ গঠনের প্রস্তাবকে সমর্থন করে এই অভিমত ব্যক্ত করেছেন শারদ পাওয়ার, উদ্ধব ঠাকুর এবং হেমন্ত সোরেনের মতো শীর্ষ বিরোধী নেতারা। নিজেদের সেই অভিমতকে টুইটবার্তায়ও চড়িয়ে দিয়েছেন। সূত্রের খবর, শুধু গঠন করাই নয়, শারদ পাওয়ার-উদ্ধবরা চাইছেন, এই কোর গ্রুপ আবর্তিত হোক মমতা ব্যানার্জিকে ঘিরেই। তাদের মতে, গেরুয়া শিবির-বিরোধী লড়াইকে গোটা দেশের মানুষের সংগ্রামে পরিণত করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে সহায়ক হতে পারে মমতা ব্যানার্জির লড়াকু ইমেজ এবং আপসহীন সংগ্রাম। বাংলার বিগত বিধানসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদিসহ গোটা কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করে সেই ‘ইমেজ’কে আরও ক্ষুরধার করেছেন তৃণমূল প্রধান। নির্বাচনী লড়াইয়ে তার দলের আপ্তবাক্য ‘খেলা হবে’ এখন আসমুদ্র হিমাচলের বিরোধী মন্ত্রে পরিণত হয়েছে। শুক্রবার সোনিয়া গান্ধীর ডাকা ১৯টি বিরোধী দলের সমন্বয় বৈঠকে অংশ নিয়ে থেমে থাকছেন না মমতা। শনিবারও দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বিরোধী নেতা-নেত্রীদের সঙ্গে কথাবার্তা সেরেছেন মমতা। বিরোধী জোট গঠনের এই প্রক্রিয়ায় অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি, অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টি এমনকি মায়াবতীর বহুজন সমাজ পার্টির প্রতিনিধিরাও যাতে সম্পৃক্ত হন, সেই চেষ্টা শুরু করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। ধর্মনিরপেক্ষ, গণতান্ত্রিক ও সমমনোভাবাপন্ন সব দলকে একছাতার নিচে এনে দেশের বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলা করার রাস্তা খুঁজে বের করার কাজেই ব্রতী হয়েছেন মমতা।