সোমবার, ১১ এপ্রিল, ২০২২ ০০:০০ টা

ক্যারিশম্যাটিক প্রধানমন্ত্রীর পতন যে কারণে

ক্যারিশম্যাটিক প্রধানমন্ত্রীর পতন যে কারণে

পুরোদস্তুর ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ। কিন্তু রাজনীতির পথ যে মসৃণ নয় তা হাড়ে হাড়ে টের পেলেন ইমরান খান। পাকিস্তানের সদ্য বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী। ২০১৮ সালে ইমরান যখন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন তখন মনে হচ্ছিল যেন সবকিছু তাঁরই পক্ষে কাজ করছে। কারণ দেশটির স্বাধীনতার পর রাজনীতিতে গেঁড়ে বসা প্রতিদ্বন্দ্বী দুই পরিবারকে বেশ সংগ্রামের পর অপসারণ করতে পেরেছেন। দেশটিতে এ পর্যন্ত কোনো প্রধানমন্ত্রী তার পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। মনে হচ্ছিল যেন ইমরান খান হয়তো প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সেই ইতিহাস বদলাতে পারবেন। যে কারণে তাঁকে তাঁর অবস্থানে খুব সংহত মনে হয়েছিল সেই একই কারণ দিয়েই তাঁর পতন ব্যাখ্যা করা যায়। তিনি পাকিস্তানের শক্তিশালী সেনাবাহিনী এবং গোয়েন্দা সংস্থার সহায়তায় ক্ষমতায় আসীন হয়েছিলেন বলে মনে কিন্তু এখন তাদের সঙ্গে সেই সম্পর্কের অবনতি হয়েছে।  ক্ষমতায় আসীন হওয়ার পর ইমরান খান বেশ গর্বের সঙ্গে ঘোষণা দিয়েছেন যে, নীতি নির্ধারণের বিষয়ে সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাঁর অবস্থান একই। ক্ষমতায় এসে তিনি সমাজ সেবা ব্যবস্থার বেশ চমৎকার কিছু সম্প্রসারণ করেছেন, দেশের বেশির ভাগ জায়গায় স্বাস্থ্যবীমা ব্যবস্থা চালু করেছেন। কিন্তু বেশ কিছু দিক দিয়ে তিনি হোঁচটও খেয়েছেন। এর মধ্যেই দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল বাজওয়া এবং গোয়েন্দা প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফায়েজ হামিদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। ফায়েজ হামিদ পরবর্তী সেনাপ্রধান হওয়ার আশা পোষণ করতেন। তাদের মধ্যকার বিরোধ প্রকাশ্য হয়ে উঠেছিল গত গ্রীষ্ম মৌসুমে প্রভাবশালী রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের সঙ্গে এক আলাপচারিতার সময়। একজন সাংবাদিক একটি প্রশ্ন করেছিলেন কিন্তু আইএসআই প্রধান বলে বসেন যে, সময় শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু তার কথা শেষ না হতেই জেনারেল বাজওয়া বলেন, ‘আমি হচ্ছি সেনাপ্রধান এবং আমি সিদ্ধান্ত নেব কখন সময় শেষ হবে।’ অক্টোবর মাসে তাঁদের দুজনের বিরোধ চরমে পৌঁছায় এবং এর মধ্যখানে পড়ে যান ইমরান খান। জেনারেল বাজওয়া গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হিসেবে নতুন কারও কথা ভাবছিলেন। কিন্তু এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছিলেন ইমরান, যিনি লেফটেন্যান্ট জেনারেল হামিদের সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তাঁর পদ পরিবর্তন বিষয়ক প্রজ্ঞাপন সপ্তাহ তিনেক আটকিয়েও রেখেছিলেন ইমরান খান, যদিও শেষ পর্যন্ত হাল ছাড়তে হয় তাঁকে।

সর্বশেষ খবর