শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০৯:৪২
আপডেট : ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ১০:১১

চাকরির ইন্টারভিউ ফেলে আহত বৃদ্ধকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন যুবক

অনলাইন ডেস্ক

চাকরির ইন্টারভিউ ফেলে আহত বৃদ্ধকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন যুবক

চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছিলেন, কিন্তু পথে রক্তাক্ত এক বৃদ্ধকে দেখে তাকে নিয়ে ছুটেন হাসপাতালে। গত রবিবার এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মেচেদা এলাকায়। এরইমধ্যে ঘটনার ছবি ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে। ওই যুবকের নাম শেখ ওয়ালিদ আলী। তিনি কলকাতার কাঁথি নামক অঞ্চলের শ্রীরামপুরের বাসিন্দা। প্রাণিবিদ্যায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রির নিয়েছেন। আপাতত হাওড়ার উলুবেড়িয়ার আল আমিন মিশন কলেজে খণ্ডকালীন শিক্ষকতা করছেন।

গত রবিবার ওয়েস্ট বেঙ্গল কলেজ সার্ভিস কমিশনে অধ্যাপক পদে যোগদানের ইন্টারভিউ ছিল তার। পাঁশকুড়া বনমালী কলেজে সকাল সাড়ে ৯টায় ছিল সে সাক্ষাৎকার। ওই বৃদ্ধকে বাঁচাতে গিয়ে সে ইন্টারভিউ আর দেয়া হয়নি তার।

ওয়ালিদ বলেন, সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে মেচেদায় ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কে এক বৃদ্ধ পথচারীকে মোটরসাইকেল এসে সজোরে ধাক্কা দেয়। রাস্তায় পড়ে মারাত্মক আহত হন বৃদ্ধ । কেউ এগিয়ে আসছিল না। ১০০-তে ফোন করেও পুলিশের সাড়া পাইনি। এরপর চাকরির মায়া ছেড়ে বৃদ্ধকে নার্সিংহোমে নিয়ে যাই। বৃদ্ধের চিকিৎসা চলাকালীন তার আত্মীয়দের খবর দিয়ে ডেকে আনি। ততক্ষণে ইন্টারভিউ দেয়ার সময় পেরিয়ে গেছে। ১০টার পরে কেন্দ্রে পৌঁছে দেখি অনেকেই ইন্টারভিউ দিয়ে চলে গেছেন। দেরি হওয়ায় আমাকে কেন্দ্রেই ঢুকতে দেয়া হয়নি। মোবাইল ক্যামেরায় তোলা বৃদ্ধের ছবি দেখিয়ে ঘটনার কথা জানানোর পরেও ওই কলেজের অধ্যক্ষ আমাকে ইন্টারভিউ দেয়ার সুযোগ দেননি।

তিনি বলেন, চাকরির পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ অনেক আসবে। কিন্তু একজন মানুষের প্রাণ চলে গেলে আর আসবে না। তাই এ নিয়ে আমার কোনো আক্ষেপ বা হতাশা নেই। আমি মনে করি সেদিন মানুষ হওয়ার পরীক্ষা দিয়েছি এবং ভালো পাশ করেছি।

আহত বৃদ্ধ শেখ নুরজামানকে দেখতে সোমবার তিনি কাঁথির মুকুন্দপুরেও গিয়েছিলেন ওয়ালিদ। গিয়ে জানতে পারেন, রবিবার নাতির ওষুধ কিনতে মেচেদায় গিয়েছিলেন নুরজামান। এখন তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য