শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২১ মে, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ মে, ২০১৬ ০০:০৪

চার দিনের ছুটির ফাঁদে ফাঁকা ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

চার দিনের ছুটির ফাঁদে ফাঁকা ঢাকা

শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। এর সঙ্গে আসছে সোমবার পবিত্র শবেবরাত। মাঝে এক দিন রবিবার কার্যদিবস। এই এক দিনের ছুটি নিয়ে টানা চার দিনের জন্য ঢাকার বাইরে চলে গেছেন রাজধানীতে বসবাস করা বড়সংখ্যক সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী। কেউ গেছেন পবিত্র শবেবরাতে স্বজনদের সঙ্গে ইবাদতে কাটানোর উদ্দেশ্যে। কেউ গেছেন ব্যস্ত কর্মজীবন ও কোলাহলপূর্ণ রাজধানী থেকে কিছুটা সময় বাইরে কাটিয়ে আসার জন্য। ফলে অনেকাংশেই ফাঁকা হয়ে গেছে রাজধানী। কিন্তু এ চার দিনের ছুটির ফাঁদে পড়েছে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সেবা। গতকাল সকালে ঢাকার গাবতলী-মহাখালী বাস টার্মিনাল, কমলাপুর রেল স্টেশন ও সদরঘাট লঞ্চঘাট ঘুরে ঢাকা ছেড়ে যাওয়া মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। গাবতলীতে হানিফ পরিবহনের কর্মকর্তা বাবু জানান, ‘যারা বৃহস্পতিবার রাতের টিকিট পাননি। তারাই শুক্রবার বিভিন্ন সময় যাচ্ছেন। এখনো টিকিট না পাওয়া অনেক মানুষ টার্মিনালে ঘোরাঘুরি করছেন।’ যাত্রী আফজাল হোসেন বললেন, ‘কর্মস্থল বেসরকারি ব্যাংক থেকে রবিবার ছুটি নিয়ে চার দিন বরিশালে কাটিয়ে আসতে বৃহস্পতিবার লঞ্চের টিকিট কেটেছিলাম। কিন্তু আবহাওয়ার কারণে লঞ্চ বন্ধ করে রাখা হয়েছে। তাই আজ সকালে বাসে যাওয়ার জন্য মহাখালী গিয়েছিলাম, সেখানে টিকিট নেই। এখন গাবতলী এসেও বাসের কোনো সিট পাইনি, তবে ইঞ্জিন কভারে যাওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে।’ কমলাপুর রেল স্টেশনে সরকারি কর্মকর্তা ফারহানা ফাতেমা বললেন, ‘শবেবরাতটা বাবা-মার সঙ্গে কাটাতে প্রায় মাসখানেক আগেই পরিকল্পনা করে রেখেছি।’ তবে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার মানুষ পড়েছে বিপদে। কারণ, বৈরী আবহাওয়ায় লঞ্চ চলাচল পুরোপুরিই বন্ধ। তাই লঞ্চঘাটে গিয়েও ফিরে আসতে হয়েছে অনেককে। আবার কুয়াকাটা ও কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে যাওয়ার পরিকল্পনা বাদ দিতে হয়েছে অনেককে। ঢাকার গ্রিনলাইন পরিবহনে কক্সবাজারগামী সরকারি কর্মকর্তা মীর রাকিব বললেন, ‘আবহাওয়ার কারণে কক্সবাজার যেতে পারছি না। তাই টিকিট ফেরত দিতে এসেছি। শুনেছি কক্সবাজার ও কুয়াকাটা থেকে সেখানে যাওয়া মানুষদের পাশের জেলা শহরে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর