শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫২

পরিবেশ ছাড়পত্র নেই, ঢাকার ২৩১ প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরিবেশ ছাড়পত্র নেই, ঢাকার ২৩১ প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ

পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র ছাড়া ঢাকায় থাকা ২৩১টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান অবিলম্বে বন্ধ করতে পরিবেশ অধিদফতরকে নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। গতকাল বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। এ ছাড়া বুড়িগঙ্গার দক্ষিণ পাড়ে বর্জ্য ফেলানো বন্ধে এবং নদীতে সরাসরি পতিত লাইন বন্ধে ব্যবস্থা নিতে ঢাকার ডিসি, এসপি, পরিবেশ অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় পরিচালক, কেরানীগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যান, ওসিকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এসব আদেশ পালন করে আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি আদালতে প্রতিবেদন দিতে হবে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। পরিবেশ অধিদফতরের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আমাতুল করিম। পরে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, এইচআরপিবির পক্ষে জনস্বার্থে যে মামলা করা হয়েছিল সেই মামলায় ইতিপূর্বে আদালত নির্দেশ দিয়েছিল পরিবেশ অধিদফতরকে- যেসব ইন্ডাস্ট্রি বুড়িগঙ্গার পানি দূষণ করছে, পরিবেশ লাইসেন্স ছাড়া যে ইন্ডাস্ট্রিগুলো চলছে তাদের একটা তালিকা দেওয়ার জন্য। সে তালিকা দাখিল করে পরিবেশ অধিদফতর বলেছে ২৩১ টা কারখানা ঢাকা শহরে পরিবেশ ছাড়পত্র ছাড়া চলছে।

বুড়িগঙ্গার পানি দূষণরোধে কার্যকর ব্যবস্থা  গ্রহণের নির্দেশনা চেয়ে ২০১০ সালে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে ওই রিট করা হয়েছিল। সে রিটের শুনানি শেষে তিন দফা নির্দেশনা দিয়ে ২০১১ সালের ১ জুন রায় দিয়েছিল হাই কোর্ট। চলতি বছরের শুরুতে এ রায় নিয়ে এইচআরপিবি একটি সম্পূরক আবেদন করেন। ওই আবেদনের পরে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেছিলেন, জনস্বার্থে করা এক রিট মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বুড়িগঙ্গার পানি দূষণরোধে ২০১১ সালে আদালত অনেকগুলো নির্দেশনা দিয়েছিল। বুড়িগঙ্গার ভিতরে যেসব স্যুয়ারেজ লাইন আছে, ইন্ডাস্ট্রিয়াল লাইন আছে সেগুলো ছয় মাসের মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশের পাশাপাশি বুড়িগঙ্গার তীরে যাতে ময়লা আবর্জনা ফেলতে না পারে সে জন্য সচেতনতামূলক প্রোগ্রাম করার জন্য বলা হয়েছিল রায়ে।

তিনি আরও জানান, কিন্তু সংশ্লিষ্টরা এই নির্দেশনাগুলো পুরোপুরি পালন না করায় এ সম্পূরক আবেদন করা হয়েছিল।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর