শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২২

বরিশাল মেডিকেলে ‘নার্স পেটানো’র কথা নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশাল মেডিকেলে ‘নার্স পেটানো’র কথা নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা

বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ‘নার্স পেটানো’র কথা নিয়ে গতকাল অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এ কথার জের ধরে নার্সরা পরিচালককে অবরুদ্ধ করেন। এজন্য রোগীদের সেবা প্রদান ব্যাহত হয়। পরে সমঝোতার মধ্যদিয়ে বিষয়টির সমাধান হয়। হাসপাতাল সূত্র জানায়, জরায়ুর সমস্যা নিয়ে গত ১৩ জানুয়ারি ভর্তি হন পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ছোট সিংহের হাট এলাকার বৃদ্ধা আলো রানী (৬০)। ২৩ জানুয়ারি হাসপাতালের গাইনি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. নাসরিন সুলতানার নেতৃত্বে ওই রোগীর জরায়ু অপারেশন হয়। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, অপারেশনের পর চিকিৎসকরা দুটি গজের একটি জরায়ুর ভিতরে রেখে সেলাই দিয়ে দেন। এতে রোগীর শরীরের তাপমাত্রা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাচ্ছিল। প্রতিদিন ৪/৫টি নাপা সাপোজিটরি দিয়ে তার শরীরের তাপমাত্রা কমানো হচ্ছিল। ওই রোগীর স্বজন হাসপাতালের নার্স সঞ্চিতা রানী বিষয়টি নিয়ে গতকাল সংশ্লিষ্ট বিভাগের চিকিৎসক সহযোগী অধ্যাপক ডা. নাসরিন সুলতানার সঙ্গে কথা বলেন। এ নিয়ে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে ডা. নাসরিন সুলতানা নার্স সঞ্চিতা রানীকে ‘আপাদমস্তক পেটানো দরকার’ বলে মন্তব্য করেন।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে গতকাল বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নার্সরা বিক্ষুব্ধ হয়ে হাসপাতালের পরিচালকের দফতরে গিয়ে প্রতিবাদে ফেটে পড়েন এবং তারা পরিচালককে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে পরিচালক সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের ডেকে ঘটনার ব্যাখ্যা চান এবং উভয় পক্ষকে নিয়ে সমঝোতা বৈঠকে বসেন। দীর্ঘ সময় বৈঠকের পর দুঃখ প্রকাশের মধ্যদিয়ে বিষয়টির সমাধান হয়। এ সময় পর্যন্ত হাসপাতালের রোগী সেবা ব্যাহত হয়েছে।


আপনার মন্তব্য