শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:২৭

টেক্সটাইল শ্রমিকদের টিকা দিতে তথ্য নিচ্ছে বিটিএমএ

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

টেক্সটাইল শিল্পকল শ্রমিক-কর্মচারীদের করোনার টিকা দিতে তথ্য সংগ্রহ শুরু করেছে বস্ত্রকল মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশন-বিটিএমএ। সংগঠনটি টেক্সটাইল শিল্পকল প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে নির্ধারিত ছকে শ্রমিক-কর্মচারীদের তালিকা চেয়ে চিঠি দিয়েছে। বিটিএমএ জানিয়েছে- টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার পরই শ্রমিক-কর্মচারীর সংখ্যা জানার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিশেষ ব্যবস্থায় অগ্রাধিকারভিত্তিতে বস্ত্রকলের শ্রমিকরা করোনার টিকা পাবেন। তাই বস্ত্রকলগুলোকে আগামী ৩ আগস্টের মধ্যে তথ্য দিতে বলেছে বিটিএমএ।

টেক্সটাইল শিল্পকল শ্রমিক-কর্মচারীদের করোনার টিকা দিতে তথ্য চেয়ে গত সোমবার বিটিএমএ তাদের সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে চিঠি দিয়েছে। এর আগে বিটিএমএ সভাপতি মোহাম্মদ আলী গত ১৩ জুলাই সংগঠনের সদস্যভুক্ত স্পিনিং, উইভিং ও ফেব্রিক প্রসেসিং মিলের শ্রমিক-কর্মচারীদের টিকার আওতায় আনার অনুরোধ জানিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়াকে চিঠি দেন। পরে ১৯ জুলাই মন্ত্রণালয় থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশনা দেওয়া হয়। তার পরপরই বস্ত্রকলে কত শ্রমিক-কর্মচারী আছে, তা জানার উদ্যোগ নেয় বিটিএমএ।

স্বাস্থ্যসচিবকে লিখিত চিঠিতে বিটিএমএর সভাপতি উল্লেখ করেন, জাতীয় স্বার্থে বস্ত্রকলের শ্রমিক-কর্মচারী সবাইকে টিকা কর্মসূচির আওতায় আনা প্রয়োজন। চলতি অর্থবছরে সরকার ৫ হাজার ১০০ কোটি ডলার রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে। যার বড় অংশই তৈরি পোশাক ও বস্ত্রখাত থেকে আসবে। ফলে এই খাতের শ্রমিক-কর্মচারীদের সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনা করে তাঁদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে। মোহাম্মদ আলী চিঠিতে বলেন, বিটিএমএর সদস্য কারখানাগুলো ঢাকার সাভার, আশুলিয়া, গাজীপুর ও শ্রীপুর এবং ময়মনসিংহ, ভালুকা, নারায়ণগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ ও চট্টগ্রামের কিছু এলাকায় অবস্থিত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিটিএমএর অঞ্চলগত দিক বিবেচনায় নিয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে বাস্তবায়ন করলে তা ফলপ্রসূ হবে। জানা গেছে- বিটিএমএর সদস্য কারখানার সংখ্যা ১ হাজার ৫২১। তার মধ্যে সুতা উৎপাদনের জন্য স্পিনিং মিল ৪৩৩, কাপড় উৎপাদনের মিল ৮২৭ এবং উৎপাদিত কাপড় প্রক্রিয়াজাত অর্থাৎ ডায়িং-প্রিন্টিং-ফিনিশিং মিল আছে ২৫১টি। অবশ্য তার মধ্যে অনেক মিলই বর্তমানে উৎপাদনে নেই।

এই বিভাগের আরও খবর