শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ জুলাই, ২০১৬ ২৩:২২

অ্যাথলেট ছাড়াই অলিম্পিকে রাশিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক

অ্যাথলেট ছাড়াই অলিম্পিকে রাশিয়া

১৯৮০ সালের মস্কো অলিম্পিক বয়কট করেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা জোট। ৩৬ বছর আগের অলিম্পিক বয়কট করার যুক্তি ছিল মার্কিনীদের আফগানিস্তানে রাশিয়ার আগ্রাসন। বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের বড় বড় দেশগুলোর বয়কটে অলিম্পিক জৌলস হারিয়েছিল বেশ। চার বছর পর ১৯৮৪ সালে লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিক বয়কট করেছিল রাশিয়া। এরপর আর কোনো অলিম্পিকে এত সংখ্যক দেশ বয়কট করেনি। অবশ্য মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো এবং আফ্রিকান দেশগুলোও বয়কট করেছিল। কিন্তু এবার রিও অলিম্পিকের আগে রাশিয়ার অ্যাথলেটদের অংশগ্রহণের উপর যেভাবে নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখল আইওসি, তাতে নিশ্চিত করেই বলা যায় ক্রীড়াঙ্গনের অন্যতম পরাশক্তি রাশিয়ার অনুপস্থিতিতে জৌলস হারাবে ৫ আগস্ট শুরু রিও ডি জেনিরো অলিম্পিক। 

রাশিয়ার বিপক্ষে ব্যাপক ডোপিংয়ের অভিযোগ আইওসির। অলিম্পিক কাউন্সিল বলছে, রাশিয়ার সরকার সরাসরি ডোপিংয়ের পৃষ্ঠপোষক। অ্যাথলেটদের মধ্যে ব্যাপকভাবে ডোপিংয়ের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রাশিয়ান অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনকে নিষিদ্ধ করে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন (আইএএএফ)। এজন্য নভেম্বরে রাশিয়াকে অলিম্পিকে অংশগ্রহণ থেকে নিষিদ্ধ করে। আইওসির এই সিদ্ধান্তের বিপক্ষে আবেদন করে রাশিয়া। কিন্তু নিজেদের সিদ্ধান্তেই স্থির থাকে কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টস (সিএএস)। অবশ্য রাশিয়ার ৬৮ জন অ্যাথলেট এর বিপক্ষে আবেদন করেছিল। কিন্তু সিএএস নিজেদের সিদ্ধান্তেই স্থির থাকে। নিষেধাজ্ঞা প্রসঙ্গে সিএএসের এক মুখপাত্র বলেন, ‘সিএএস প্যানেল নিশ্চিত করেছে, আইওসি রাশিয়ার অ্যাথলেটদের রিও অলিম্পিক গেমসে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মনোনীত করতে পারবে না।’ অবশ্য সিএএসের সিদ্ধান্তের চরম সমালোচনা করেছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ, ‘এই সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আমরা ক্ষুব্ধ। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালত আমাদের সব অ্যাথলেটদের দোষী বানিয়েছে। ঢালাওভাবে সবাইকে দোষী করার বিষয়টি গ্রহণযোগ্য নয়।’ তারকা পোল ভোল্টার ইয়েলেনা ইসিনবায়েভা এই সিদ্ধান্তকে রাশিয়ান অ্যাথলেটিকসের ‘শেষকৃত্য’ হিসেবে দেখছেন। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ও বর্তমান রাশিয়া মিলে ১ হাজার ৭০০  পদক জিতেছে অলিম্পিকে।


আপনার মন্তব্য