শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:০৪
প্রিন্ট করুন printer

অর্জুনের মতো বল করতে পারলে শচীন নিজেও গর্বিত হতো: জয়াবর্ধনে

অনলাইন ডেস্ক


অর্জুনের মতো বল করতে পারলে শচীন নিজেও গর্বিত হতো: জয়াবর্ধনে
ফাইল ছবি

এবারের আইপিএল নিলামে সবচেয়ে শেষ নামটা ছিল শচীনপুত্র অর্জুন টেন্ডুলকারের। ২০ লাখ টাকায় তাকে দলে নিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এই নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চা শুরু হয়েছে। কেউ বলছেন যোগ্যতার তুলনায় বেশি মূল্য পেয়েছেন অর্জুন। আবার কেউ বলছেন অর্জুনের থেকে বেশি রান করা এবং উইকেট নেওয়া ক্রিকেটাররা ব্রাত্য থাকলেও শুধুমাত্র শচীন টেন্ডুলকারের পুত্র হওয়ার কারণে এই সুবিধা পেয়েছেন তিনি। অর্থাৎ বেশিরভাগ অভিযোগ যোগ্যতা নয়, পদবির জন্য নিলামে দল পেয়েছেন অর্জুন।

সমালোচনা যে কানে আসেনি এমন নয়। কিন্তু মুম্বাই দলের হেড কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে এবং ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট জহির খান স্পষ্ট করে দিয়েছেন অর্জুনকে দলের নেওয়ার পেছনের আসল কারণ। মাহেলা জানিয়েছেন, সকলেই জানেন শচীনের ছেলে বলে তার ওপর আলাদা চাপ থাকবে। তার থেকে প্রত্যাশা থাকবে। কিন্তু আমরা অর্জুনকে দলে নিয়েছি তার স্কিল দেখে, নাম দেখে নয়। আমি মনে করি শচীনের সঙ্গে অর্জুনের তুলনা করাটা ঠিক নয়। অর্জুন বোলিং অলরাউন্ডার। অর্জুনের মত বল করতে পারলে শচীন নিজেও গর্বিত হতো।

দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সুবাদে প্রতিভা দেখে চিনতে অসুবিধা হয় না জয়াবর্ধনের। অর্জুনকে দেখে যথেষ্ট প্রতিভাবান মনে হয়েছে সাবেক এই শ্রীলঙ্কান অধিনায়কের। সময় দিলে এবং সাহস দিলে অর্জুন নিজের স্বাভাবিক খেলা তুলে ধরতে পারবে মনে করেন তিনি। 

জহির খান নিজের ছিলেন বাঁহাতি পেসার। অর্জুনও বাঁহাতি পেসার। জহির বলেন, অর্জুন ক্রিকেটের প্রতি প্রচন্ড শ্রদ্ধাশীল। বয়স কম, প্রচুর শেখার আছে। কিন্তু সবচেয়ে বড় কথা তার শেখার ইচ্ছা আছে। তাছাড়া গত বছর আবুধাবিতে দলের সঙ্গে ছিল। আমাদের সঙ্গে যথেষ্ট সময় কাটিয়েছে। তাই এই পর্যায়ে কীভাবে নিজেকে তৈরি করতে হয় একটা ধারণা হয়ে গেছে। বলের গতি আগের থেকে অনেক বেড়েছে। ব্যাট হাতেও আক্রমনাত্মক। কিন্তু এরপরও তাকে সময় দিতে হবে।

যাকে নিয়ে এত আলোচনা সেই অর্জুন নিজে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়েছেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দলে সুযোগ পেয়ে। দলে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটা উজাড় করে দিতে চান বলে জানিয়েছেন শচীনপুত্র।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর