শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ জুন, ২০২১ ১২:০৬
প্রিন্ট করুন printer

ভারতীয় ভাষাকে ‘কুৎসিত’ বলে অপমান গুগলের, অতঃপর…

অনলাইন ডেস্ক

ভারতীয় ভাষাকে ‘কুৎসিত’ বলে অপমান গুগলের, অতঃপর…
Google News

বিশ্বের কুৎসিততম ভাষা কী? প্রশ্নের জবাবে গুগল তুলে আনছে এক ভারতীয় ভাষার নাম-কন্নড়। এটি কর্ণাটকের ভাষা। গুগলের এই উত্তরের জেরে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। এতে গুগলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ আছড়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এমনকি, গুগলকে আইনি নোটিস পাঠানোর হুমকিও দিলেন কর্ণাটকের নেতা-মন্ত্রীরা। বিতর্কের মুখে শেষ পর্যন্ত ক্ষমা চাইল এই টেক জায়ান্ট।

ঠিক কী ঘটেছিল? বৃহস্পতিবার দেখা যায়, গুগল সার্চ ইঞ্জিনে কুৎসিততম ভাষা লিখলেই ভেসে উঠছে কন্নড় ভাষার নাম। বিষয়টি নজরে আসতেই তীব্র প্রতিবাদ জানান কর্ণাটকের বাসিন্দা থেকে নেতা-মন্ত্রীরা। কর্ণাটক সরকারের পক্ষ থেকে আইনি নোটিস জারির হুমকিও দেওয়া হয়। এরপরই দ্রুত ‘ত্রুটি’ সংশোধন করে ফেলে গুগল।

এ প্রসঙ্গে কর্ণাটকের মন্ত্রী অরবিন্দ লিম্বাভলি জানান, “এরকমভাবে প্রাচীন ভাষার অপমান করার অর্থ কী? আমরা গুগলকে আইনি নোটিস পাঠাচ্ছি।”

টুইটারেও সরব হন তিনি। কন্নড় ভাষাভাষী মানুষের কাছে গুগলকে দ্রুত ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। কর্ণাটকের মন্ত্রীর কথায়, কন্নড় ভাষার নিজস্ব ঐতিহ্য আছে। আড়াই হাজার বছরের পুরনো এই ভাষার সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। অথচ সেই ভাষাকেই এভাবে অপমান করা হল। কন্নড় ভাষাভাষীদের কাছে গুগল দ্রুত ক্ষমা চাক। আমাদের ঐতিহ্যপূর্ণ ভাষাকে অপমানের করার জন্য গুগলের বিরুদ্ধে আইনি পথে হাঁটব আমরা।

এরপরই দ্রুত বিবৃতি দেয় গুগল। জানায়, সার্চ ইঞ্জিনে সার্চের ফলাফল সবসময় ঠিক দেখায় না। কখনও কখনও বিস্ময়কর ফলাফল দেখানো হয়। এটা প্রযুক্তিগত ত্রুটি। বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। কারো ভাবাবেগে আঘাত করার কোনও উদ্দেশ্য আমাদের ছিল না। অনিচ্ছাকৃত এই ভুলের জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর