শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ অক্টোবর, ২০১৭ ২৩:৫০

টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক যেন মরণ ফাঁদ

গাজীপুর সওজ কর্তৃপক্ষ গত চার মাস ধরে নামমাত্র ইট ও খোয়া বালি জোড়াতালি দিয়ে সড়কটির মেরামত কাজ করছে

আফজাল, টঙ্গী

টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক যেন মরণ ফাঁদ

গাজীপুরের টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সামান্য বৃষ্টির পানিতে বিভিন্ন স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী, এলাকাবাসী ও পথচারীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। গাজীপুর সওজ কর্তৃপক্ষ গত চার মাস ধরে নামমাত্র ইট ও খোয়া বালি জোড়াতালি দিয়ে সড়কটির মেরামত কাজ করছে।

টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক ও ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক সামান্য বৃষ্টির পানিতে খানা খন্দে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। আর খানা খন্দের কারণেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। সওজ কর্তৃপক্ষের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা না থাকায় এমন অবস্থা হয়েছে বলে মন্তব্য এলাকাবাসীর। টঙ্গী-কালীগঞ্জ প্রায় ২৫ কিলোমিটার সড়কের টঙ্গী স্টেশনরোড, মরকুন, টিঅ্যান্ডটি, সিলমুন, নিমতলী, মাঝুখান, তালটিয়া, মিরাবাজার, বসুগাঁও, কলেজ গেট, পূবাইলসহ বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে প্রতিদিনই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে এলাকাবাসী ও পথচারীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। মিরাবাজার এলাকার বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী শাহিনুল ইসলাম শাহিন বলেন, রাস্তাঘাটের বেহাল দশার কারণে প্রতিদিন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বাসে বসে সময় পার করতে হয়। সওজ কর্তৃপক্ষ টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়ক সংস্কারে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে এই রুটে চলাচলে হাজার হাজার মানুষ ভোগান্তির শিকার হবে। কেটিএল পরিবহন মালিক শেখ আবদুল হালিম বলেন, সড়কে খানা খন্দের কারণে টঙ্গী থেকে কালীগঞ্জ যেতে এক ঘণ্টার রাস্তা তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা সময় লাগে। এ ছাড়া গাড়ির চাকা ও গাড়ি গর্তে পড়ে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হতে হয়। এ বিষয়ে সওজ টঙ্গী জোনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. তানভির আলম টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়কের বেহাল দশার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, যেখানে গর্ত রয়েছে আমরা সেখানে ইট ও খোয়া বালি দিয়ে সংস্কারের কাজ করছি। সওজ গাজীপুর বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নাহিন রেজা বলেন, টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়কে টেন্ডার হয়েছে, সড়কটি আরও ৬ ফুট প্রশস্ত করা হবে। আশা করি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ঠিকাদার কাজ শুরু করতে পারবে। তখন জনদুর্ভোগ কমে আসবে।


আপনার মন্তব্য