শিরোনাম
প্রকাশ : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২১:৩৭
আপডেট : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২১:৪১
প্রিন্ট করুন printer

চা বাগানে ছবি তোলা নিয়ে ছাত্রলীগ-চা শ্রমিক বাকবিতণ্ডা, রিসোর্টে ভাঙচুর

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজর) প্রতিনিধি

চা বাগানে ছবি তোলা নিয়ে ছাত্রলীগ-চা শ্রমিক বাকবিতণ্ডা, রিসোর্টে ভাঙচুর
Google News

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ছবি তুলতে নিষেধ করায় একটি চা বাগানের ডেপুটি ম্যানেজারকে মারধোর করেছে ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ নেতারা। পরে ওই চা বাগানের শ্রমিকরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলা করে ও একটি রিসোর্টে ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

ঘটনাটি ঘটে আজ সকালে উপজেলার রাধানগর এলাকায়। হামলায় দুই পক্ষের প্রায় ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। 

এলাকাবাসী জানায়, ঢাকা মহানগর (উত্তর) ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহীম হোসেন গত বুধবার রাধানগর এলাকা একটি রিসোর্টে আসেন। তার সাথে ছিলেন ঢাকার মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের আরও ১৮ নেতাকর্মী। বৃহস্পতিবার তারা রিসোর্টের পার্শ্বে জেরিন চা বাগানের ৯ নং সেকশসের কালাবন এলাকার ছবি তুলছিলেন। এ সময় ওই এলাকায় কর্মরত মহিলা চা শ্রমিকরা তাদের ছবি তুলতে নিষেধ করলে শ্রমিকদের সাথে নেতাকর্মীদের কথাকটাকাটি হয়। পরে বাগানের ডেপুটি ম্যানেজার ওই টিলার দায়িত্বে থাকা (টিলা বাবু) মোহাম্মদ আলী এসে তাদের ছবি তুলতে নিষেধ করলে নেতাকর্মীরা ডেপুটি ম্যানেজারের সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এই পর্যায়ে তারা ম্যানেজারের গায়ে হাত তোলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শ্রমিকরা বাগানে পাগলা ঘণ্টি বাজালে প্রায় দুশতাধিক চা শ্রমিক ওই রিসোর্টে এসে হামলা করে। হামলায় ২ জন ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও ১ এক ডেপুটি ম্যানেজার, ১ এক বাগান কর্মচারীসহ ১১ জন চা শ্রমিক আহত হয়। 

জেরিন চা বাগানের ব্যবস্থাপক মো. সেলিম রেজা বলেন, চা পাতা তুলার সময় মহিলা শ্রমিকদের গায়ের কাপড় ঠিক থাকে না। তাই তারা ছবি তুলতে নিষেধ করেছিল।

ঢাকা মহানগর (উত্তর) ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহীম হোসেন বলেন, ‘ছবি তোলা নিয়ে একটি ভুল-বোঝাবুঝি হয়েছিল। পরে বাগানের শ্রমিকরা এসে রিসোর্টে আমাদের উপর হামলা করে।’

পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া বলেন, ‘এ ঘটনায় কোন পক্ষই এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ দেয়নি।’

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর