শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:১৪

চার লেন হবে হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি সড়ক

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

চার লেন হবে হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি সড়ক

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মীরসরাই বারৈয়ার হাট হয়ে হাটহাজারী-ফটিকছড়ির হেয়াকো-মানিকছড়ি-মাটিরাঙা-খাগড়াছড়ি পর্যন্ত বর্তমানে যোগাযোগ ব্যবস্থা আছে। কিন্তু ফটিকছড়ির হেয়াকো-মানিকছড়ি-মাটিরাঙা-খাগড়াছড়ি পর্যন্ত সকটির সরু হওয়ায় প্রতিনিয়তই ভোগান্তি পোহাতে হয় যাত্রীদের, ঘটে সড়ক দুর্ঘটনা।

তবে এবার এ পথের যাত্রীদের যাতায়াতে নতুন সূচনা তৈরি হবে। ফটিকছড়ির হেয়াকো-মানিকছড়ি-মাটিরাঙা-খাগড়াছড়ি পর্যন্ত সড়কটি চারলেনে উন্নীত করা হবে। ফলে চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলার যাত্রীদের যোগাযোগে নতুন দিগন্ত তৈরি হচ্ছে। ১৮ ফুট প্রস্থের সড়কটিকে ৩৪ ফুটে উন্নীত করা হবে।

আগামী ২১ সেপ্টম্বর শনিবার দুপুরে হাটহাজারী বাস স্টেশনে সংসদ সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আনুষ্ঠানিকভাবে সড়কটির চারলেনে উন্নীতকরণের কাজ উদ্বোধন করার কথা।            

সড়ক ও জনপথ (সওজ) চট্টগ্রাম বিভাগ সূত্রে জানা যায়, হাটহাজারী-ফটিকছড়ির হেয়াকো-মানিকছড়ি-মাটিরাঙা-খাগড়াছড়ি পর্যন্ত ৩২ দশমিক ৫০ কিলোমিটার সড়কটি চারলেনে উন্নীত করা হবে। এ সড়কে নির্মাণ করা হবে ৩০৮ মিটারের ৩৮টি আরসিসি কালভার্ট। সড়ক-বাধ প্রশস্ত করতে দেওয়া হবে  ৬ লাখ ৪৬  হাজার ৫০৫ দশমিক ৬ ঘনমিটার মাটি। দেওয়া হয় রোড সাইন-সিগন্যাল, গাইড পোস্ট, রোড মার্কিংসহ নেয়া হয় সড়ক নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা।   

সড়ক ও জনপথ (সওজ) চট্টগ্রাম বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জুলফিকার আহমেদ বলেন, ‘ হাটহাজারী-ফটিকছড়ির হেয়াকো-মানিকছড়ি-মাটিরাঙা-খাগড়াছড়ি সড়কটি বর্তমানে ১৮ ফুট প্রস্থের। এটি ৩৪ ফুট প্রস্থে উন্নীত করা হলে তিনটি জেলার মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন হবে। বিশেষ করে ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ির যোগাযোগ কম সময়ের মধ্যে করা সম্ভব হবে।

সহজ হবে আন্তঃজেলাগুলোর মধ্যকার যোগাযোগ। আন্তঃজেলার মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হলে কৃষিভিত্তিক শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠবে। একই সঙ্গে কৃষিভিত্তিক পণ্য পরিবহনও সজহ হবে। অন্যদিকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো- খাগড়াছড়িতে পর্যটকদের জন্য যাতায়াত সহজতর হবে।’    

জানা যায়, ইস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট (ইবিবিআইপি) এর আওতায় নির্মিত সড়কটির কাজ শুরু হবে। বর্তমানে ১৮ ফুট প্রস্থের সড়ক দিয়ে জেলার যানবাহনগুলো যাতায়াতে সমস্যা হয়। বিশেষ করে সড়ক সরু হওয়ায় দুরপাল্লার বাসগুলোর মধ্যে দুর্ঘটনার সংখ্যাও বাড়ছে। ফলে সড়কটি চারলেনে উন্নীত করা জরুরি হয়ে পড়ে। একই সঙ্গে এ সড়ক দিয়ে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে যাতায়াত পথও সুগম হবে বলে জানা যায়।     

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার


আপনার মন্তব্য