শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ মে, ২০২০ ১৬:৩৮

করোনা প্রতিরোধে চট্টগ্রামে পুুলিশের প্লাজমা ব্যাংক

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম:

করোনা প্রতিরোধে চট্টগ্রামে পুুলিশের প্লাজমা ব্যাংক

করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের সুস্থতার জন্য এক অন্যন্য উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি)। করোনা যুদ্ধে বিজয়ী পুলিশ সদস্যদের নিয়ে তৈরি করা হয়েছে প্লাজমা ব্যাংক। যা দিয়ে সুস্থ হবে অসংখ্য করোনা রোগী। এ কার্যক্রমে পরবর্তীতে করোনা থেকে সুস্থ হওয়া সাধারণ মানুষদেরও যুক্ত করা হবে।

সিএমপি কমিশনার মাহাবুবর রহমান বলেন, ‘করোনা যুদ্ধে বিজয়ী পুলিশ সদস্যদের নিয়ে প্লাজমা ব্যাংক গঠন করা হয়েছে। তারা করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের প্লাজমা ডোনেট করে সুস্থ হতে সহায়তা করবে। পুলিশের এ কার্যক্রমে করোনা থেকে সুস্থ হওয়া যে কেউ যুক্ত হতে পারবেন।’ 
তিনি বলেন, ‘যারা পুলিশের এ কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হবে তাদের পুরস্কৃত ও সাম্মানীত করা হবে। এরই মধ্যে প্রত্যেক থানা পুলিশকে প্লাজমা ডোনার সংগ্রহ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

চট্টগ্রাম সাউদার্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মাইক্রোবাইলোজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীরা প্লাজমা থেরাপী নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠছেন। ভ্যাকসিন আবিস্কৃত না হওয়া পর্যন্ত এ থেরাপী সবচেয়ে বেশি কার্যকর মনে হচ্ছে। পুলিশ প্লাজমা ব্যাংক তৈরির যে উদ্যাগ নিয়েছে তা প্রশংসনীয়।’

জানা যায়, চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলায় গত বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত ২ হাজার ৪২৯ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯৭ জন। সুস্থ হওয়াদের মধ্যে সিএমপি’র ৩৯ জন সদস্য রয়েছে। করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের জন্য প্লাজমা থেরাপী বিশ্বের নানান দেশে কার্যকর ভূমিকা রাখতে। এরই মধ্যে বাংলাদেশেও এ থেরাপী শুরু হয়েছে। মুমূর্ষু করোনা রোগীদের পাশে দাঁড়াতে প্লাজমা ব্যাংক করার উদ্যোগ নেন সিএমপি কমিশনার। প্রাথমিক ভাবে সিএমপি’র করোনা যুদ্ধে বিজয়ী সদস্যদের নিয়ে এ ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হয়। এ ব্যাংকে পুলিশের বাইরেও করোনা থেকে সুস্থ হওয়া সাধারণ লোকজনকেও যুক্ত করা হবে। এরই মধ্যে প্রত্যেক থানা পুলিশকে ডোনার তৈরির জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। প্লাজমা ব্যাংক কার্যক্রম তদারকির জন্য সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগমকে প্রধান করে একটি মনিটরিং কমিটিও করা হয়েছে। 
কমিটিতে উপ-কমিশনার (সদর) আমির জাফর ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (সদর) মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম ও বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালের চিকিৎসকদের রাখা হয়েছে।

সিএমপি খুলশী থানার ওসি প্রণব চৌধুরী বলেন, ‘সিএমপি’র কমিশনারের নির্দেশনা পেয়ে কাজ শুরু করেছি। করোনা থেকে সুস্থ হওয়াদের সাথে যোগাযোগ করে করা হয়েছে। তারা প্লাজমা ডোনেট করতে রাজি হয়েছেন।’

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর