শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ জুলাই, ২০২০ ২১:১৯

চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ‘বজ্রকণ্ঠ’ উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ‘বজ্রকণ্ঠ’ উদ্বোধন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ  মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ‘বজ্রকণ্ঠ’ নামে দেশের বৃহত্তম ভাস্কর্য উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরের হালিশহরস্থ বড়পুল মোড়ে নির্মিত ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করেন  চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর এইচ এম সোহেল, নাজমুল হক ডিউক, হাসান মুরাদ বিপ্লব, এরশাদ উল্লাহ, আফরোজা কালাম, চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল সোহেল আহমদ, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, টিআইসি’র পরিচালক আহমেদ ইকবাল হায়দার, চারুশিল্পী আতিকুল ইসলাম, শায়লা শারমিন, সাবেক  কাউন্সিলর লায়ন মোহাম্মদ হোসেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, ঝুলন কান্তি দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাদাত মোহাম্মদ তৈয়ব, হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল আলম পিপিএম, সহকারী প্রকৌশলী আনোয়ার জাহান, প্রকৌশলী রেজাউল বারী প্রমুখ। 

চসিক সূত্রে জানা যায়, ‘বজ্রকণ্ঠ’ ভাস্কর্যটি নির্মাণ ও স্থাপন কাজে চসিকের ব্যয় হয়েছে ৮৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা। এর উচ্চতা সাড়ে ২২ ফুট, বেইজসহ পুরো ভাস্কর্যের উচ্চতা ২৬ ফুট। সাদা সিমেন্টের (আর.সি.সি) ঢালাইয়ের মাধ্যমে ভাস্কর্যটির স্থায়ী রূপ দেয়া হয়, যার ওজন প্রায় ৩০ টন। প্রায় ৪ মাস সময় ধরে মাটি (মডেলিং ক্লে) দিয়ে মূল ভাস্কর্যের আদলটি তৈরি করা হয়। মাটির তৈরি ওই আদলকে (অনূকৃত) প্রথমে জনসম্মুখে উন্মোচিত করা হয়েছিল। ভাস্কর্যটির দীর্ঘ স্থায়িত্বকাল নিশ্চিতে কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়। এর মধ্যে বেইজ ভূগর্ভস্থ অংশ ও উপরিতলের অংশে রডের কাঠামো দেয়া, মূল ভাস্কর্যের ঢালাই ও শক্তিশালী এমএস রডের কাঠামো, কিছু বিশেষ জায়গায় এসএস রড ব্যবহার, দীর্ঘ সময় স্থায়িত্ব নিশ্চিতে পানি, অক্সিজেন ও লবণঘটিত ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমাতে বিশ্বসেরা কোম্পানি থেকে সংগৃহীত ক্যামিকেল-যৌগ ঢালাইয়ের মিশ্রণে সুনির্দিষ্ট অনুপাতে মিশানো হয়েছে। ভাস্কর্যটির নকশা তৈরি করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের তৎকালীন পরিচালক শিল্পী শায়লা শারমিন, চারুকলা ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ভাস্কর মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম। সহযোগী শিল্পী ছিলেন জয়াশীষ আচার্য্য, তপন ঘোষ ও মোহাম্মদ পারভেজ আলম, শিক্ষার্থী বিলাস মন্ডল, নুর-এ-আলা সিদ্দিক, গোপাল কৃষ্ণ রুদ্র, মোস্তাফিজুর রহমান তোহা, জয়দীপ দেওয়ানজী। 

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার/রেজা মুজাম্মেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর