শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:২৭
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৪২
প্রিন্ট করুন printer

‘‌মামলা নয়, বুঝিয়ে সমাধানই উত্তম’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

‘‌মামলা নয়, বুঝিয়ে সমাধানই উত্তম’

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেছেন, অনেক সময় দেখা যায়, এমন সাধারণ কিছু বিষয় নিয়ে মামলা হয়, যেটাতে মামলা হওয়ার মত কোনো যৌক্তিক কারণ নেই। যে কোনো জায়গায় কোনো একজন সম্মানিত ব্যক্তি যদি দুই পক্ষকে ডেকে একটু বুঝিয়ে বলে যদি দেন- তাহলে বিষয়টি নিস্পত্তি হয়ে যায়। তাই বিরোধ সৃষ্টি হলে মামলা দায়েরের প্ররোচনা না দিয়ে দুই পক্ষকে ডেকে বুঝিয়ে সমস্যার সমাধান করাটাই উত্তম।  

বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে আয়োজিত ‘গ্রাম আদালত আইন ও নারীবান্ধব গ্রাম আদালত’ সম্পর্কে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের অবহিতকরণ সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগ চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. বদিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সুমনী আক্তার। সহকারী কমিশনার (স্থানীয় সরকার) নূর জাহান আক্তার সাথীর সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা তথ্য অফিসের উপপরিচালক সাঈদ হাসান, আঞ্চলিক তথ্য অফিসের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. আজিজুল হক নিউটন।  

মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামে কিছু খারাপ নজির দেখেছি আমি। আমার কাছে এমন কিছু বিষয় আসছে যেগুলোর মামলার কোনো মেরিট নেই। তাদের বুঝিয়ে বলে দিয়েছি। সমাধান হয়ে গেছে। হয়তো আমার ৫ মিনিটের জায়গায় ১০ মিনিট সময় লেগেছে। ১০ মিনিটের জায়গায় ২০ মিনিট সময় দিতে হয়েছে। হয়তো পুরো বিষয়টি দুই দিন শুনতে হয়েছে। কিন্তু আমি দেখেছি দুই পক্ষকে বুঝিয়ে বলার পর সমাধান হয়ে গেছে। সমাজে যাদের একটু অবস্থান আছে, যাদেরকে মানুষ একটু মান্য করে তারা যদি এই উদ্যোগ নেন, তাহলে কিন্তু মামলার সংখ্যা কমে আসবে।  

সভায় জানানো হয়, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, ইউএনডিপি এবং সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগের সহায়তায় চট্টগ্রামের ৫টি উপজেলার ৪৬টি ইউনিয়নে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি, লোহাগাড়া, সন্দ্বীপ, সাতকানিয়া এবং সীতাকুন্ডে গ্রাম আদালতের মাধ্যমে ৭ হাজার ৩৫৫টি মামলার মধ্যে ৭ হাজার ৯৯টি মামলা নিস্পত্তি করা হয়েছে। তাছাড়া গ্রাম আদালতের মাধ্যমে দেওয়ানী ও ফৌজদারী মামলায় ৩ কোটি ৮৮ লাখ ১৮ হাজার ৮৩১ টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন বিচারপ্রার্থীরা।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর