শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৭

খুলনায় ওয়াসার পানি সরবরাহ প্রকল্প চালু

দৈনিক ৯ কোটি লিটার পানি পাবে চট্টগ্রাম নগরবাসী

প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন আজ

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে আজ আনুষ্ঠানিকভাবে উৎপাদনে যাচ্ছে চট্টগ্রামের শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্প। প্রায় ১ হাজার ৮০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ প্রকল্প থেকে দৈনিক প্রায় ৯ কোটি লিটার বিশুদ্ধ সুপেয় পানি পাবেন নগরবাসী। গণভবন থেকে আজ সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উত্তর জেলার মদুনাঘাটের হালদার পাড়-ঘেঁষে নির্মিত শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। হালদার পরিবেশগত দিক বিবেচনায় এ প্রকল্পে বিশ্বমানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানান চট্টগ্রাম ওয়াসা-সংশ্লিষ্টরা। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশ সরকার ও চট্টগ্রাম ওয়াসার যৌথ অর্থায়নে প্রকল্পটির কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালে। ২০১৮ সালের নভেম্বরে পরীক্ষামূলকভাবে চালু হয় এ পানি শোধনাগারটি। হালদা নদী থেকে পানি তুলে ছয় ধাপে পানি পরিশোধন শেষে সরবরাহ লাইনে দেওয়া হয়। বর্তমানে চট্টগ্রাম শহরে পানির চাহিদা রয়েছে ৪২ কোটি লিটার। আর সক্ষমতা রয়েছে ৩৬ কোটি লিটার। এর মধ্যে শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার থেকে ১৪ কোটি,      মোহরা পানি শোধনাগার থেকে ৯ কোটি, শেখ রাসেল পানি শোধনাগার থেকে ৯ কোটি ও নলকূপ থেকে ৪ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করা হয়। মদুনাঘাট পানি শোধনাগার প্রকল্প এলাকা সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে এরই মধ্যে নগরে পানি সরবরাহ শুরু করেছে ওয়াসা। সেখানে হালদা থেকে পানি উত্তোলনের পর চার ধাপে পরিশোধন করা হচ্ছে। এ নিয়ে প্রকৌশলী ও রসায়নবিদরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। পরিশোধিত পানি পরীক্ষা করা হচ্ছে। আমাদের খুলনা প্রতিনিধি সামছুজ্জামান শাহীন জানান, অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হচ্ছে খুলনার বহুল প্রতীক্ষিত সুপেয় পানি সরবরাহ প্রকল্প। এরই মধ্যে মধুমতি নদী থেকে ৩৩ কিলোমিটার পাইপলাইনে পানি আনা হয়েছে রূপসায় নির্মিত বঙ্গবন্ধু ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টে। এখানে পানি পরিশোধনের পর তা খুলনা শহরে সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে খুলনা ওয়াসা এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এদিকে আজ রূপসায় নির্মিত বঙ্গবন্ধু ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পানি পরিশোধন কার্যক্রমের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। জানা যায়, খুলনা মহানগরীতে সুপেয় পানির সংকট নিরসনে ২০১৩ সালে মেঘা প্রকল্প হাতে নেয় ওয়াসা। এর আওতায় প্রায় ৪৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে রূপসায় ৬৪ একর জমির ওপর বঙ্গবন্ধু ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট নির্মাণ করা হয়েছে। পাইপলাইনে আনা মধুমতি নদীর পানি এখানে বিশেষ প্রক্রিয়ায় পরিশোধন করা হচ্ছে। শোধনাগার থেকে রূপসা নদীর তলদেশ হয়ে খুলনা শহরের সাতটি রিজার্ভারে পানি সরবরাহ করা হবে। এ ছাড়া গ্রাহককে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে নগরীতে ৬৫০ কিলোমিটার পাইপলাইন বসানো হয়েছে। বর্তমানে পাইপের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি পানির লাইনের সংযোগ দেওয়া হচ্ছে। ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল্লাহ জানান, ট্রিটমেন্ট প্লান্টে কয়েক স্তরে ফিল্টারের মাধ্যমে নদীর পানি পরিশোধন করা হচ্ছে। পরবর্তীতে রিজার্ভার থেকে চারটি পাম্পের সাহায্যে প্রতিদিন গড়ে ১১ কোটি লিটার পানি খুলনা শহরে সরবরাহ করা যাবে। প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় নির্ধারণ করা হয় ২ হাজার ৫২৪ কোটি ৩৩ লাখ ৭২ হাজার টাকা। এর মধ্যে জিওবি ছাড়া এডিবি ৫২৩ কোটি ৭৭ লাখ ৯৬ হাজার ও জাইকা ১ হাজার ২৮৪ কোটি ১২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা দেয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর