শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৩৯

জয়নুল হক সিকদারের কুলখানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

জয়নুল হক সিকদারের কুলখানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নুল হক সিকদারের কুলখানি উপলক্ষে গতকাল রাজধানীতে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে -বাংলাদেশ প্রতিদিন

খ্যাতিমান ব্যবসায়ী, দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট সমাজসেবী, শিক্ষানুরাগী, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠজন সিকদার গ্রুপ অব কোম্পানিজের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদারের কুলখানি ও দোয়া মাহফিল গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজধানীর রায়েরবাজারে তাঁর নিজ হাতে গড়া জয়নুল হক সিকদার উইমেন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাবের হোসেন চৌধুরী, সাবেক মন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, আসলামুল হক, সাদেক খান, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রুহুল আমিন হাওলাদার, মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান, নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, ন্যাশনাল ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত এমডি এ এস এম বুলবুলসহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অংশ নেন। এ ছাড়া মরহুমের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে স্ত্রী মনোয়ারা হক সিকদার, কন্যা পারভীন হক সিকদার, নাসরিন হক সিকদার ও লিসা এফ হক সিকদার, পুত্র রিক হক সিকদার, রন হক সিকদারসহ সব সদস্য দোয়া মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখ্য, গত বুধবার ৯১ বছর বয়সে দুবাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জয়নুল হক সিকদার। সফল এই ব্যবসায়ী দেশের অর্থনীতির বিকাশ ও কর্মসংস্থানে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। একে একে ব্যাংক, গার্মেন্ট, রিয়েল এস্টেট, এভিয়েশনসহ বিভিন্ন সেক্টরে কোম্পানি প্রতিষ্ঠান করেছেন।

 মরহুমের পাঁচ ছেলে ও তিন মেয়ের সবাই এখন দেশে-বিদেশে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। বর্তমানে বাংলাদেশ, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ইউএই, পোল্যান্ড, ফ্রান্স ও আমেরিকায় সিকদার গ্রুপের ব্যবসা রয়েছে। মোটা দাগে রিয়েল এস্টেট, চিকিৎসা ও শিক্ষা, ব্যাংকিং, এভিয়েশন, আবাসিক হোটেল এবং রেস্টুরেন্ট, বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণ, বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র ও গার্মেন্ট সেক্টরে তাঁর ব্যবসা পরিচালিত হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া, নিউইয়র্ক এবং থাইল্যান্ডের ব্যাংককে সিকদার গ্রুপের কই হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট এখন বিশ্বখ্যাত। সিকদার গ্রুপকে নিয়ে বাগেরহাটের মোংলায় ২০৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠা করেন দেশের প্রথম পাবলিক-প্রাইভেট ইকোনমিক জোন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে বান্দরবানে ২০ একর জমির ওপর হচ্ছে চন্দ্রপাহাড় রিসোর্ট। কক্সবাজারে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপে হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম ভিলেজ। আবাসন ব্যবসার আওতায় ১০ মিলিয়ন টাকা ব্যয়ে ধানমন্ডিতে নির্মাণ করেছেন সুবিশাল রিভার প্রজেক্ট। নিভৃতচারী আর প্রচারবিমুখ এই শিল্প উদ্যোক্তা গড়ে তুলেছেন সমৃদ্ধ এক শিল্পগোষ্ঠী।

এই বিভাগের আরও খবর