শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩০

৪ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

ভুয়া কোম্পানির এজেন্ট নিয়োগের নামে প্রায় ৫০০ ব্যক্তিকে চাকরি দেওয়ার নামে প্রায় ৪ কোটি  টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। গ্রেফতার তরিকুল ইসলাম বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বারহাট্টা দামপাড়ার আবদুস সাত্তারের ছেলে। গতকাল দুপুরে মেট্রোপলিটন পুলিশের কার্যালয়ে বিশেষ প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান। এ সময় বলা হয়, ২০২০ সালে মুক্তাপানি ও টিএমএফ (তরিকুল, মোতালেব, ফিরোজ) ট্রেডার্স লিমিটেড নামে ভুয়া কোম্পানি গঠন করে এজেন্ট নিয়োগের জন্য রংপুর বিভাগের সাতটি জেলা ও উপজেলায় অফিস চালু করেন তরিকুল ইসলাম। পরে মুক্তাপানি ও টিএমএফ কোম্পানির এজেন্ট নিয়োগ দেওয়া হবে মর্মে পত্রিকায় ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুয়া বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে রংপুর মহানগরসহ বিভাগের ছয় শতাধিক ব্যক্তি মুক্তা কোম্পানির এজেন্ট ও কর্মী হতে আবেদন করেন। এরপর পাঁচ শতাধিক ব্যক্তির প্রত্যেকের কাছ থেকে  ৫০ হাজার থেকে ৩ লাখ টাকা নেয় গ্রেফতার তরিকুল ও তার সহযোগীরা। এভাবে তরিকুল পর্যায়ক্রমে ৪ কোটির বেশি টাকা হাতিয়ে নেন। পরে মুক্তাপানির এজেন্টদের পণ্য সরবরাহ না করে তরিকুল ও তার সহযোগীরা রংপুর থেকে ঢাকা পালিয়ে যায়। গত জানুয়ারি মাসে তরিকুলের নামে ভুক্তভুগীরা প্রতারণার অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে কোতোয়ালি থানায় তরিকুলের নামে প্রতারণার অপরাধে মামলা হয়। পরে পুলিশ কমিশনার মেট্রো ডিবির কাছে মামলাটি হস্তান্তর করেন। রংপুর মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশ ১৯ মার্চ বগুড়ার শিবগঞ্জের কালিতলা বাজার থেকে তরিকুলকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার মো. তরিকুল ইসলাম বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চায়না কোম্পানিসহ বিভিন্ন বেনামি কোম্পানি এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/অফিসে নিয়োগ দেওয়ার নামে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। তরিকুলের ঢাকার নিকুঞ্জে একটি বিলাসবহুল বাসভবন রয়েছে বলে বিফিংয়ে উল্লেখ করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর