শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:১২

কর্মীরা চেনেন না নেতাদের

সেয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

কর্মীরা চেনেন না নেতাদের

মাহবুবুল আলম। তার ছোট ভাই রফিকুল আলম ২০০৯ সালে গফরগাঁও উপজেলা যুবলীগের (প্রস্তাবিত) কমিটিতে যুগ্ম আহ্বায়ক পদে নামও ছিল। তাদের বাবা আইনুদ্দিন মাস্টার ছিলেন গফরগাঁওয়ের পাঁচবাগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি। মাহবুবুল আলম ২০ বছরের প্রবাস জীবন কাটিয়ে বছর পাঁচেক আগে আসেন বাংলাদেশে। নিজ এলাকা বিচ্ছিন্ন এ মানুষটি এখন ময়মনসিংহ (দ.) জেলা বিএনপির নয়া আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক। অপরদিকে আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফাত্তাহ মোহাম্মদ আবদুল হান্নান খান। বিএনপির সক্রিয় রাজনীতিতে তারও দেখা মেলেনি। তবে ভুঁইফোড় সংগঠন কেন্দ্রীয় তৃণমূল দলের সাধারণ সম্পাদক তিনি। ওই দুই নেতার ওপরে আছেন আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক ডা. মোফাখখারুল ইসলাম রানা। গত ২০ বছর ধরে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কোনো পদেও নেই। হঠাৎই এখন তিনিও ‘বড়’ নেতা। তবে তাদের তিনজনেরই কয়েকটি মিল রয়েছে। জন্মসূত্রে তারা তিনজনই ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানা এলাকার। ভালুকা উপজেলা থেকে নয় নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক হয়েছেন আবুল হোসেন। অভিযোগ আছে, জেলা এবং উপজেলায় বিএনপির কোনো পদেও তিনি ছিলেন না। দক্ষিণের ছয় উপজেলা (সদর, ভালুকা, ত্রিশাল, গফরগাঁও, ফুলবাড়িয়া ও মুক্তাগাছা) নিয়ে গত পাঁচ ডিসেম্বর একজনকে আহ্বায়ক, ১০ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ৪০ জনকে সদস্য করে আহ্বায়ক কমিটি দেয় কেন্দ্রীয় বিএনপি। এর মধ্যে চারজন যুগ্ম আহ্বায়ক ও দুজন সদস্য গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার। এ ছাড়া আরও পাঁচজন সদস্য রয়েছেন গফরগাঁও থানার। দলটির সিনিয়র এক নেতার ভাষ্য, ‘আওয়ামী লীগের দুর্গে তিন যুগ্ম আহ্বায়ক বিএনপির ‘অচিন পাখি’। গফরগাঁও পৌর বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক বলেন, ‘ঢাকায় থেকে তদবিরে পদ এনেছে অনেকেই। পাগলা থানার উস্থি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও গফরগাঁও উপজেলার যুগ্ম আহ্বায়ক কবির সরকার বলেন, ‘গত ছয় বছরে ১১টি মামলা এবং তিনবার কারান্তরীণ হয়েছি। অথচ আলম, ফাত্তাহ ও রানারা এখন আমাদের নেতা!’ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জ্যেষ্ঠ একাধিক নেতার দাবি, দলের সংকটে, দুঃসময়ে হাল ধরা অনেক নেতার নামও আছে নব্য নেতাদের নিচে। সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সাত নম্বর সদস্য হেলাল আহম্মেদ জানান, ‘কমিটিতে ঠাঁই পাওয়া অনেকেই ময়মনসিংহ জেলার মাঠের রাজনীতিতে জড়িত নয়। এ নিয়ে ইতিমধ্যে আমরা আহ্বায়কের কাছে প্রতিবাদ জানিয়েছি।’


আপনার মন্তব্য