শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২১ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মার্চ, ২০২০ ২৩:৫৮

বাঁশের সাঁকোয় পারাপার ১০ গ্রামের মানুষের

নীলফামারী প্রতিনিধি

বাঁশের সাঁকোয় পারাপার ১০ গ্রামের মানুষের

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের পশ্চিম অসুরখাই ও পূর্ব অসুরখাই গ্রামের মধ্যবর্তী স্থানে কাঁচারিঘাটে চিকলী নদীর ওপর দীর্ঘদিনেও একটি সেতু নির্মাণ হয়নি। এতে ইউনিয়নের ১০ গ্রামের মানুষ সৈয়দপুর শহরে আসতে নদীটি পারাপারে দুর্ভোগের শিকার হাচ্ছেন।

নড়বড়ে বাঁশের সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন সৈয়দপুর শহরে আসা-যাওয়া করায় এসব এলাকার বাসিন্দা প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। সরেজমিন দেখা যায়, চিকলী নদীর কাঁচারিঘাটের পূর্ব পাশে কামারপুকুর ইউনিয়নের পূর্ব অসুরখাইসহ আশপাশে ১০টি গ্রাম রয়েছে। কামারপুকুর ইউনিয়ন ছাড়াও সৈয়দপুর উপজেলা কাশিরাম বেলপুকুর এবং রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের লোকজন কাঁচারিঘাট হয়ে সৈয়দপুরে যাতায়াত করে থাকেন। শুষ্ক মৌসুমে সাঁকোর ওপর দিয়ে হেঁটে যাওয়া-আসা করা গেলেও ভোগান্তিতে পড়তে হয় বর্ষা মৌসুমে। তখন সাঁকো দিয়ে নদী পারাপার অসম্ভব হয়ে পড়ে। তাছাড়া বাঁশের সাঁকো দিয়ে কোনো যানবাহন নিয়ে চলাচল করা যায় না। যোগাযোগ সমস্যার কারণে ফলে ওই সব গ্রামে উৎপাদিত কৃষিপণ্য সৈয়দপুর শহরে নিতে পারেন না কৃষকরা। স্কুল-কলেজ ও অফিসগামী মানুষজন সময়মতো গন্তব্যে পৌঁছতে ব্যর্থ হন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান বলেন, কাঁচারিঘাটে চিকলী নদীর ওপর একটি সেতু নির্মাণ জরুরি হয়ে পড়েছে। এ বিষয় উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় একাধিকবার প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। সেতু নির্মাণ হলে ১০ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হবে। উপজেলা প্রকৌশলী রায়হানুল ইসলাম বলেন, চিকলী নদীর কাঁচারিঘাটে ৬৫ মিটার একটি সেতু নির্মাণের জন্য প্রস্তাব সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠানো হয়েছে। এ বছরই প্রকল্পটি অনুমোদন পাবে। অনুমোদন পেলেই সেতু নির্মাণ কাজ শুরু হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর