শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৫ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ মে, ২০২১ ২৩:২৪

বোরো মৌসুমে কদর বেড়েছে শ্রমিকের

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

বোরো মৌসুমে কদর বেড়েছে শ্রমিকের

বোরো ধান কাটা ও মাড়াই করে ঘরে তোলার জন্য কৃষকরা ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন জয়পুরহাটে। ফলে কদর বেড়েছে বোরো ধান কাটা ও মাড়াই করা কৃষি শ্রমিকের। এবার বেশি মজুরি পেয়ে শ্রমিকরা বেশ খুশি। তারা প্রতিদিনের মজুরি হিসেবে আয় করছেন ৬০০/৭০০ টাকা পর্যন্ত। সঙ্গে তিন বেলার খাবার তো আছেই। বোরো চাষি ও কৃষি দিনমজুর শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বোরো ধান মাঠে পেকে গেছে। বোরো মৌসুমে ঝড়, শিলাবৃষ্টি নিয়ে কৃষকরা প্রতিবছর দুশ্চিন্তায় থাকেন। ধান পাকার সঙ্গে সঙ্গে মাঠ থেকে ধান কেটে ও মাড়াই শেষে দ্রুত ঘরে তুলতে চান কৃষক। কৃষকরা বলছেন এ সময় কৃষি শ্রমিকের চাহিদা বাড়ে। সদর উপজেলার পালী গ্রামের কৃষক শাহ আলম বলেন, কৃষকের বাড়ি থেকে জমির দূরত্ব ভেদে এ বছর ১ বিঘা জমির ধান কাটা ও মাড়াই করতে ৫-৬ হাজার টাকা খরচ পড়ছে। দিন হাজিরা হিসেবে খেত মজুররা কাজ করলে ৬০০ টাকা দিন সঙ্গে দুপুরের খাবার। কৃষি শ্রমিকরা এ মৌসুমে ১৫-২০ দিন ভালো আয় রোজগার করে থাকেন। অন্য সময় ৩০০ টাকা দিন হাজিরা। ধান কাটা মৌসুমের শুরুতে উত্তরের বিভিন্ন উপজেলা থেকে দলে দলে ধান কাটতে কৃষি শ্রমিকরা আসতে শুরু করেছে। গতকাল সৈয়দপুর থেকে আসা ১৩ জন কৃষি শ্রমিকের সঙ্গে কথা বললে ওই দলে থাকা শ্রমিক আজিজুল, মনোয়ার ও সাদেকুল জানান, তারা প্রতি বছর এ মৌসুমে বোরো ধান কাটতে আসেন। তারা আক্কেলপুর উপজেলার গোপীনাথপুরে এক কৃষকের ধান কাটতে যাচ্ছেন। তারা বিঘা প্রতি চুক্তিভিত্তিক ধান কেটে ও মাড়াই করে বাড়তি রোজগার করবেন।

করেন।

তবে  ভোর থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করতে হয় তাদের।  জয়পুরহাট জেলায় এ মৌসুমে ৬৯ হাজার ৪২৫ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হয়েছে। এ পরিমাণ জমির ধান থেকে প্রায় ৩ লাখ মেট্রিক টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর