শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ জুলাই, ২০২১ ২৩:০৩

জনবল সংকটে চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত করোনা রোগীরা

কামরুজ্জামান সোহেল, ফরিদপুর

জনবল সংকটে চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত করোনা রোগীরা
Google News

দক্ষ জনবল এবং চিকিৎসক সংকটে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন করোনা রোগীরা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে শূন্য পদ পূরণের দাবি জানালেও তা কার্যকর হয়নি। ফলে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে। এ ছাড়া দক্ষিণাঞ্চলের করোনা রোগীদের অধিকতর সেবা দিতে এ হাসপাতালের আইসিইউ বেড বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন ফরিদপুরবাসী। ১৯৯৩ সালে ১০০ বেডের সমন্বয়ে শহরের পশ্চিম খাবাসপুরে প্রতিষ্ঠিত হয় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ৮ জেলার রোগীর চাপ থাকায় প্রথমে ২৫০ এবং ২০১৮ সালে ৫০০ বেডে উন্নীত করা হয়। ২০১৪ সালে ব্যবস্থা করা হয় ১৬ বেডের একটি পূর্ণাঙ্গ আইসিইউ বিভাগের। হাসপাতালটির পরিধি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ফরিদপুরসহ রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, মাগুরা, নড়াইল, ঝিনাইদহ এমনকি কুষ্টিয়া-মেহেরপুর জেলা থেকে মুমূর্ষু রোগী এ হাসপাতলতে আসে। করোনার কারণে সম্প্রতি এটিকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল ঘোষণা করা হয়। কর্তৃপক্ষ জানায়, আইসিইউ বিভাগের জন্য একজন সহকারী অধ্যাপক, দুজন জুনিয়র কনসালটেন্টসহ ১৪ জন নার্স, প্যাথলোজি ও রেডিওলোজি টেকনিশিয়ান, আয়া, সুইপারের পদ শূন্য রয়েছে।

 বিভিন্ন বিভাগের শূন্য পদগুলো পূরণ না হলেও নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে রোগীদের সেবা দেওয়া হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, করোনাকালীন সময়ে আইসিউ বিভাগের শূন্য পদগুলো পূরণ হলে এখান থেকে আরও উন্নত সেবা দেওয়া সম্ভব হবে। তখন করোনা আক্রান্ত কাউকে অন্যত্র পাঠাতে হবে না। আইসিইউ বিভাগের চিকিৎসক ডা. অনন্ত বিশ্বাস বলেন, আমরা আমাদের অভিজ্ঞতা থেকে সর্বোচ্চ সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আইসিইউ বিভাগের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসক এখানে নিয়োগ দিলে আরও ভালো সেবা দেওয়া সম্ভব হতো। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের পরিচালক ডা. সাইফুর রহমান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আইসিইউ বিভাগের পদগুলো শূন্য থাকায় চিকিৎসা দিতে কষ্ট হচ্ছে। তিনি শূন্য পদগুলো  দ্রুত পূরণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

এই বিভাগের আরও খবর