শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৫:৫৮
আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:১৩

প্রসূতির ‘ভুল’ অপারেশন, চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রসূতির ‘ভুল’ অপারেশন, চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে প্রসূতির ভুল অপারেশন করার অভিযোগে ডাক্তার ও জনতা ক্লিনিকের মালিকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করা হয়েছে। সোমবার বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার আসামিরা হলেন-কালীগঞ্জ উপজেলার ডক্টরস্ প্রাইভেট হাসাপাতাল ও নাহার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ডা. কামরুন নাহার, কোটচাঁদপুর জনতা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক জাহাঙ্গীর হোসেন এবং ডাক্তারের সহকারী কোটচাঁদপুর উপজেলার ছয়খাদা-শ্রীরামপুর গ্রামের জাহিদ হাসান। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৪ জুলাই জেলার মহেশপুর উপজেলার আলামপুর গ্রামের আবু তাহের কালীর স্ত্রী নাজমা খাতুনকে সন্তান প্রসবের জন্য কোটচাঁদপুর জনতা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি করানো হয়। ভর্তির পর চিকিৎসক তার স্ত্রীকে সিজারিয়ান অপারেশন করিয়ে ১টি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। 

সন্তান প্রসবের পর পেটের যন্ত্রনায় ছটফট করতে থাকেন ওই নারী। পরের দিন আসামিরা আবারও নাজমা খাতুনকে অপারেশন করে খাদ্য নালী পেচানো ও অবরুদ্ধ অবস্থায় সেলাই করে দেন। পরে তিনি যন্ত্রনায় অসুস্থ হয়ে পড়লে ক্লিনিক থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়।

একপর্যায়ে নাজমা খাতুনের পেট ফুলে ওঠে। পরে তাকে যশোর হাসপাতালে ভর্তি করেলে চিকিৎসকরা খাদ্যনালী স্বাভাবিক করে দেন। কিন্তু প্রসাব বন্ধ করতে পারেন না। অবস্থা স্বাভাবিক না হওয়ায় ওই নারীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন তিনি।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর