১৩ আগস্ট, ২০২২ ১৭:২৮

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন, কারাগারে স্বামী

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন, কারাগারে স্বামী

স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রী মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছেন। যৌতুক দিয়েও নির্যাতন থেকে ফেরানো যায়নি। এক পর্যায়ে স্ত্রীকে তার ভাইয়ের বাসায় সন্তানসহ ফেলে রেখে যায় স্বামী। তাকে তালাক দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করবে বলেও হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রাপ্ত অভিযোগ থেকে জানা গেছে, কিশোরগঞ্জ শহরের গাইটাল এলাকার এ. মোসাদ্দেক আরজুর মেয়ে সাদিয়া আফরিন জুঁইয়ের সাথে ২০০৮ সনের ২৩ মে বিয়ে হয় নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর উপজেলার বিনোদপুর গ্রামের ইসহাক আলী মণ্ডলের ছেলে ইস্রাফিল হোসেনের। উভয়ের পরিবার বসবাস করেন চট্টগ্রামে। তাদের সংসারে বর্তমানে ১২ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের আমদানি শাখা তত্ত্বাবধায়কের দপ্তরে প্রধান সহকারী পদে চাকরি করেন ইস্রাফিল। 

জুঁইয়ের পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন, বিয়ের সময় ছেলেকে বিভিন্ন উপঢৌকন ও নগদ টাকা দেওয়া হয়। এরপরও যৌতুকের জন্য স্ত্রী জুঁইকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন শুরু করেন স্বামী ইস্রাফিল। নির্যাতনে মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন এবং কিছুটা প্রতিবন্ধী হয়ে পড়েন জুঁই। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে জুঁইয়ের পরিবার থেকে ইস্রাফিলকে ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়। পরে ধাপে ধাপে দেওয়া হয় আরও টাকা। 
উপরন্তু আরও ১০ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করেন স্বামী। দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে স্ত্রীকে তার মামার বাসায় রেখে চলে যান স্বামী ইস্রাফিল। তাকে তালাক দিয়ে আরও বেশি যৌতুক নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করারও হুমকি দিয়ে যান বলে অভিযোগ করেন জুঁইয়ের পরিবার।

এ ব্যাপারে জুঁইয়ের মা শামছুর নাহার বাদী হয়ে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কিশোরগঞ্জ ১ নং আমল গ্রহণকারী আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। গত ৭ আগস্ট আসামি ইস্রাফিল আদালতে হাজির হলে বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ইস্রাফিল জেলহাজতে থাকলেও তার লোকজন জুঁইয়ের পরিবারকে মামলা তুলে নিতে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে জুঁইয়ের পরিবার প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর