২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০২:২০

ভোলায় কোমর জোড়া লাগানো যমজ শিশুর জন্ম

ভোলা প্রতিনিধি

ভোলায় কোমর জোড়া লাগানো যমজ শিশুর জন্ম

ভোলায় কোমরের অংশে জোড়া লাগানো যমজ দুই কন্যা শিশুর জন্ম হয়েছে। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) শহরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে সিজার অপারেশনের মাধ্যমে মনি মুক্তা (২২) নামের এক নারী ওই দুই জমজ কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। মনি মুক্তা ভোলা সদর উপজেলা রাজাপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের বাসিন্দা। 

মুক্তার স্বামী সাইফুল ইসলাম জানান, শুক্রবার সকালে তার স্ত্রীর প্রসববেদনা উঠলে দ্রুত তাকে শহরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। দুপুর ১টার দিকে গাইনি ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ ডা. জান্নাত ই আলম সিজার করেন।
 
তিনি আরও জানান, দুই মাস আগে তিনি মনি মুক্তাকে ঢাকায় ডাক্তার দেখিয়েছিলেন। তখন ডাক্তার আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্ট দেখে তাকে জানিয়েছিলেন গর্ভে উল্টো অবস্থায় যমজ শিশু আছে। এছাড়াও বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরেও মনি মুক্তাকে আল্ট্রাসনোগ্রাম করা হয়। অস্ত্রোপাচার করা ডাক্তার সর্বশেষ রিপোর্ট দেখে একই কথাই জানিয়েছিলেন। তবে যমজ বাচ্চা দুইটির কোমরের অংশে যে জোড়া লাগানো তা কোনো রিপোর্টেই আসেনি।

ডা. জান্নাত ই আলম জানান, সাধারণত নারীদের গর্ভে সন্তানের অবস্থান কেমন সেটা জানতে হলে ২৪ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা থাকাবস্থায় আল্ট্রাসনোগ্রাম করতে হয়। তাহলে বাচ্চা জোড়া লাগানো কিনা সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়। মনি মুক্তা যথাসময়ে আল্ট্রাসনোগ্রাম করেনি। তার আল্ট্রাসনোগ্রামে বিলম্ব ছিল। যার ফলে তার আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে যমজ শিশু থাকার বিষয়টি এসেছে, কিন্তু শিশু দুইটি যে জোড়া লাগানো তা আসেনি।

এ চিকিৎসক আরও জানান, বর্তমানে নবজাতক দুইটি ও তাদের মা মনি মুক্তা সুস্থই আছেন। নবজাতক দুটির উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। 

ভোলার সিভিল সার্জন ডা. কে এম শফিকুজ্জামান জানান, বিভিন্ন কারণে জোড়া লাগানো যমজ শিশুর জন্ম হয়ে থাকে। মনি মুক্তার জন্ম দেয়া জোড়া লাগানো শিশু দুইটিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সেখানকার সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা এ বিষয়ে উন্নত চিকিৎসা দিতে পারবেন।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর