শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:২১

ময়মনসিংহ বিভাগ

প্রতিষ্ঠার চার বছর পরও অসম্পূর্ণতা

পিছিয়ে পড়া ময়মনসিংহ এলাকার শনির দশা কিছুতেই কাটছে না। ময়মনসিংহকে বিভাগ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হয় চার বছর আগে। জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা জেলা নিয়ে অষ্টম প্রশাসনিক বিভাগ ময়মনসিংহের আয়তন ১০ হাজার ৪৮৫ বর্গকিলোমিটার ও জনসংখ্যা ১ কোটি ১৪ লাখ ৪৭ হাজার ৫৮৩ জন। কিন্তু ময়মনসিংহ এখন পর্যন্ত নামেই বিভাগ। বিভাগ প্রতিষ্ঠার চার বছর কেটে গেলেও এ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠিত হয়নি বিভাগীয় পর্যায়ের ২৬টি গুরুত্বপূর্ণ অফিস। ময়মনসিংহ মেট্রোপলিটন পুলিশের মতো অতিদরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাও এখনো সম্ভব হয়নি। গত এক বছরে দুদক, এলজিইডি, গণপূর্ত অধিদফতর, উপভূমি সংস্কার কমিশনার, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, কারা অধিদফতর, বিআরটিসি ডিপোর ম্যানেজার অপারেশন, শ্রম অধিদফতরের যুগ্মপরিচালক, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, বিএসটিআইসহ ১২টি অফিসে বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তা যোগদান করেছেন এবং ওই অফিসগুলোয় বিভাগীয় কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ ২৬টি মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তার পদ সৃজন, পূরণসহ অফিস চালু হয়নি। ফলে উন্নয়ন কর্মকা- বাস্তবায়নে মনিটরিং জোরদার এবং সরকারি সেবাগুলো জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে না। ময়মনসিংহে বিভাগ প্রতিষ্ঠা উন্নয়নের ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়া এই এলাকাকে দ্রুত এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে এমনটিই আশা করে বিভাগবাসী। এ প্রত্যাশা পূরণে বিভাগীয় পর্যায়ে যেসব প্রশাসনিক দফতর প্রতিষ্ঠা দরকার সেগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার উদ্যোগ নিতে হবে। ময়মনসিংহের উন্নয়নে বাড়তি নজর দেওয়ার বিষয়টিও প্রাসঙ্গিকতার দাবিদার। বিভাগীয় সদর দফতরকে কেন্দ্র করে ময়মনসিংহে শিল্প স্থাপন হলে তাতে একদিকে যেমন রাজধানীর ওপর কর্মপ্রত্যাশী মানুষের জনস্রোত হ্রাস পাবে তেমন এলাকার উন্নয়ন নিশ্চিত হবে। এ লক্ষ্য সামনে রেখে ময়মনসিংহকে পূর্ণাঙ্গ বিভাগীয় অবয়বে সাজানোর বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে হবে। বিভাগ স্থাপনের সুফল এলাকাবাসী যাতে দ্রুত পায় তা নিশ্চিত করাও সরকারের কর্তব্য বলে বিবেচিত হওয়া দরকার।


আপনার মন্তব্য