Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৩৮

গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের সাত বছর কারাদণ্ড

১২ কোটি টাকা জরিমানা

আদালত প্রতিবেদক

গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের সাত বছর কারাদণ্ড

লন্ডনে অর্থ পাচার মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বন্ধু ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে সাত বছর কারাদ- দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১২ কোটি টাকা অর্থদন্ডে  দ-িত করা হয়েছে। গতকাল ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন এ রায় ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে দুদকের আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের জানান, রায় ঘোষণার আগে গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে তাকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে ৮ এপ্রিল রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে মামলাটির রায়ের দিন ধার্য করা হয়। এ মামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত ১২ জন সাক্ষীর মধ্যে ১০ জন সাক্ষীর জবানবন্দি গ্রহণ করে বিচারক রায় ঘোষণা করেন। মামুনের আইনজীবী খায়রুল ইসলাম লিটন ও জাহেদুল ইসলাম কোয়েল সাংবাদিকদের বলেন, এ মামলায় সাক্ষীরা আদালতে মিথ্যা সাক্ষ্য দিয়েছেন। তাই গিয়াস উদ্দিন আল মামুন ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হবে। রায়ে বলা হয়, গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের লন্ডনের ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকে জমা আছে বাংলাদেশি টাকায় ৬ কোটি ১ লাখ ৫৭ হাজার ৭৬২ টাকা। এই টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হলো। বাজেয়াপ্ত করার বিষয়টি বাংলাদেশ ব্যাংকে জানিয়ে বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির সব বিবরণ সরকারি গেজেট আকারে প্রকাশের নির্দেশ দেওয়া হলো। এ ছাড়া বাজেয়াপ্ত করা টাকা লন্ডন থেকে ফেরত আনার জন্য আইনি প্রক্রিয়া করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ের সিগন্যালিং ব্যবস্থা আধুনিকীকরণের টেন্ডার পায় বিটিএল ও গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যাল। কিন্তু কাজের আদেশ চূড়ান্ত হওয়ার পর মামুন ওই কোম্পানির কাছে অবৈধভাবে টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে কাজের আদেশ বাতিলের হুমকি দেন মামুন। এরপর ২০০৩ থেকে ২০০৬ সালের মধ্যে ৬ কোটি ১ লাখ ৫৭ হাজার ৭৬২ টাকা নেন মামুন। পরে ওই টাকা লন্ডনের ন্যাটওয়েস্ট ব্যাংকে পাচার করেন। এ ঘটনায় ২০১১ সালের ২২ সেপ্টেম্বর ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামুনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। পরের বছর ২০১২ সালের ২৯ এপ্রিল মামুনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। জানা গেছে, গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে ২০০৭ সালে গ্রেফতার করা হয়। তখন থেকে তিনি কারাগারে। এর আগে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনে এক মামলায় মামুনের ১০ বছর জেল হয়। আরও একটি অর্থ পাচার মামলায় মামুনের কারাদ  হয়েছে সাত বছর। এ ছাড়া জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ১৩ বছর কারাদ  হয় মামুনের।


আপনার মন্তব্য