শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জুলাই, ২০১৯ ০০:১৪

ত্বক ও সাবানের রসায়ন

ডা. এম আর করিম রেজা

ত্বক ও সাবানের রসায়ন

ত্বক শরীরের একক বৃহত্তম অঙ্গ যা রোগ প্রতিরোধ এবং শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখে। সাবান ত্বক পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত রাখতে সহায়তা করে। সোপ বার, ক্লিঞ্জার, বডি ওয়াশ, শাওয়ার জেল এ সব কিছুই সাবানের নানা ধরন। চর্বি বা তেলের সঙ্গে ক্ষার মিশিয়ে সুগন্ধি যোগ করে এগুলো তৈরি করা হয়। কিন্তু এই সাবানই আবার কখনো কখনো ত্বকের ক্ষতির কারণ হতে পারে। এজন্য সাবানের ব্যবহার নিয়ে গবেষকদের মধ্যে বিতর্ক চলছে। আসুন জেনে নেই ত্বক ও সাবানের রসায়ন : কোনো কোনো সাবান কখনো কখনো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। ত্বকে একধরনের প্রোটিন এবং তেল থাকে যা রোগ প্রতিরোধে দেয়াল হিসেবে কাজ করে থাকে। বেশি ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার করলে এগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে প্রদাহ সৃষ্টি করে। প্রদাহযুক্ত ত্বকে খুব সহজেই নানা ধরনের জীবাণু আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।   *ত্বক শুষ্ক করে, একজিমা, অ্যালার্জি বাড়িয়ে দিতে পারে। ত্বকের গ্রন্থি থেকে একধরনের তেল নি:সৃত হয় যা ত্বকের উজ্জ্বলতা এবং মসৃণতা রক্ষা করে থাকে। সাবান বাবহারে এই তেলও পরিষ্কার হয়ে যাওয়ায় ত্বক রুক্ষ এবং শুষ্ক হয়ে পরে। শুষ্ক ত্বকে চুলকানি অনুভুত হয়। যাদের একজিমা, অ্যালার্জি রয়েছে সেটি বেড়ে যেতে পারে।  সাবান তৈরিতে ব্যবহার করা সুগন্ধির কারণেও অ্যালার্জি হতে পারে। 

সমাধান কি : সোপ বার/বডি ওয়াশ/ক্লিঞ্জার/শাওয়ার জেল কেনার সময় ক্ষারীয় মাত্রা pH দেখে কিনুন। ৭ হলে সবচেয়ে ভালো, না হলে কাছাকাছি মাত্রার কিনুন। * গ্লিসারিন, সেরামাইড যুক্ত বার/বডি ওয়াশ/শাওয়ার জেল কেনার চেষ্টা করুন। * সাবানের পরিবর্তে অয়েল বেজড ক্লিঞ্জার ব্যবহার করতে পারেন, যা সাবানের মতোই ত্বক পরিষ্কার করে থাকে। * গোসলের সময় মুখ এবং শরীরের সন্ধিস্থান (বগল, কুচকি) ছাড়া অন্যস্থানে প্রতিদিন সাবান ব্যবহার না করাই ভালো।

লেখক : জাকার্তা প্রবাসী ত্বক এবং সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞ।


আপনার মন্তব্য