শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৩৫
আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:১১

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুদান ৩০ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুদান ৩০ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর

করোনা মহামারি প্রতিরোধে টিকা সরবরাহ নিশ্চিতে ‘কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দেয়া অনুদান ৩০ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেছেন, যুক্তরাজ্য আগামী চার বছরে ডব্লিউএইচও’কে ৪৩৩ মিলিয়ন ডলার অনুদান দেবে। দরিদ্র দেশগুলো করোনা প্রতিরোধে পাবে কোভ্যাক্স কর্মসূচির বড় অংকের অনুদান। ভবিষ্যতে মহামারি রুখতে ৫ দফা প্রস্তাবনার পাশাপাশি সমন্বিত গবেষণার ওপর গুরুত্ব দেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।

সম্প্রতি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে হু চিফ তেদ্রস আধানম ঘেব্রেসাস বলেছেন, দু’বছরের মধ্যে করোনা মহামারি থেকে মুক্তি পাবে বিশ্ব। বিশ্ব থেকে স্প্যানিশ ফ্লু বিদায় নিতে যা সময় লেগেছিল তার থেকেও কম সময়ে করোনাভাইরাস বিদায় নেবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হেডকোয়ার্টারে বসে এদিন তিনি বলেন, বর্তমান গ্লোবালাইজেশনের একটা খারাপ দিক রয়েছে, যার জন্য অতিদ্রুত বিদ্যুৎ গতিতে করোনাভাইরাস সারা পৃথিবীজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। আবার বর্তমানে একটা ভালো দিকও রয়েছে আর তা হলো উন্নত প্রযুক্তি। তিনি বলেন, ভ্যাকসিনসহ একাধিক উপায়ে ব্যবহার করে স্প্যানিশ ফ্লু এর থেকেও কম সময়ের মধ্যে আমরা করোনা থেকে মুক্তি পাবো।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আরও বলেন, বিশ্বজুড়ে রোগ ব্যাধির বিরুদ্ধে ডব্লিউএইচও'র ভূমিকা এখনো গুরুত্বপূর্ণ। সেজন্যই আগামী চার বছরের জন্য অনুদান ৩০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কোভ্যাক্স কর্মসূচিতেও ৫৭১ মিলিয়ন পাউন্ড বরাদ্দ করেছি। এরমধ্যে ভ্যাকসিনের সুষম বণ্টন নিশ্চিতে ৫০০ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যবহার হবে।

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে ১৫৬টি দেশ যোগ দিলেও, নেই চীন-যুক্তরাষ্ট্র। এই পদক্ষেপের অংশীদার ৬৪ ধনী দেশের মধ্যে অন্যতম যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানি।
এ ব্যাপারে ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, অভ্যন্তরীণ সংস্কারসাধনে ডব্লিউএইচও চূড়ান্ত ব্যর্থ হয়েছে। এখনও চীনের উপরে নির্ভরতা কাটিয়ে উঠতে পারেনি তারা। যে কারণে এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ হওয়ার মতো কঠোর পদক্ষেপ নিতে আমেরিকা বাধ্য হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে বছরে ৪৫ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান দেয় মার্কিন সরকার। সেই অর্থ এবার থেকে অন্য সংস্থার মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন স্বাস্থ্য প্রকল্পে খরচ করা হবে বলে ট্রাম্প জানিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর