শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:১৫
প্রিন্ট করুন printer

চরম মূল্য দিতে হবে চীনকে, বাইডেনের হুঁশিয়ারি

অনলাইন ডেস্ক

চরম মূল্য দিতে হবে চীনকে, বাইডেনের হুঁশিয়ারি
জো বাইডেন

উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রসঙ্গ তুলে চীনের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

তিনি বলেন, চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে মুসলিম সংখ্যালঘুদের সাথে যে আচরণ করা হচ্ছে তা পর্যবেক্ষণ করছে পশ্চিমা দেশগুলো। উইঘুর মুসলিমদের সঙ্গে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য চীনকে চরম মূল্য দিতে হবে।

মঙ্গলবার এক টিভি সাক্ষাৎকারে এমন হুঁশিয়ারি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এ সময় উইঘুর মুসলিমদের সুরক্ষায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার কথাও জানান বাইডেন। তিনি বলেন, তাদের আটকে রাখা’সহ মানবাধিকার লঙ্ঘন ও নির্যাতনের ঘটনায় সারা বিশ্বে সমালোচনার মুখে প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং।

বাইডেন বলেন, চীন বিশ্ব নেতা হওয়ার চেষ্টা করছে। কিন্তু অন্যান্য দেশের আস্থা অর্জন না করতে পারলে এবং মানবাধিকার বিরোধী কাজে যুক্ত থাকলে তা মোটেও সম্ভব নয়।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

বিশ্ব হুমকি সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার ওপর গুরুত্বারোপ পুতিনের

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ব হুমকি সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার ওপর গুরুত্বারোপ পুতিনের
ভ্লাদিমির পুতিন

একবিংশ শতাব্দীর প্রথম দুই দশকে সন্ত্রাসবাদের বিস্তার ব্যাপক বেড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষ করে পশ্চিম এশিয়া এবং ইউরোপে সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলো তৎপর হয়ে ওঠার বিষয়টি হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সন্ত্রাসী গোষ্ঠিগুলোর ওই হুমকি মোকাবিলা করার প্রয়োজনীয়তা এখন আগের তুলনায় দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। ২০২১ সালের জানুয়ারিতে মার্কিন কংগ্রেসে হামলার ঘটনা প্রমাণ করেছে যে পশ্চিমা বিশ্বের অভ্যন্তরে নতুন ডানপন্থি সন্ত্রাসী দল গড়ে উঠেছে। সেইসঙ্গে উগ্র নব্য-নাৎসিবাদও বিস্তার লাভ করছে।

এ বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় সন্ত্রাসবাদকে তার দেশ ও বিশ্বের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি বলে অভিহিত করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। 

রুশ ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসের প্রধানের সাথে বৈঠককালে ওই মন্তব্য করেন তিনি। 

পুতিন বলেন, "সন্ত্রাসবাদই বিশ্বের একমাত্র এবং সবচেয়ে বিপজ্জনক হুমকি"। সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার জন্য স্থায়ী ও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। সিরিয়ার প্রত্যন্ত এলাকাসহ সকল ফ্রন্টেই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত রয়েছে বলে পুতিন মন্তব্য করেন।  

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রয়োজনীয়তার ওপর পুতিনের গুরুত্বারোপের বিষয়টি নিঃসন্দেহে বিবেচনার দাবি রাখে। বিশেষ করে সম্প্রতি সন্ত্রাসবাদের নজিরবিহীন বিস্তারের পাশাপাশি বিশ্বজুড়ে তার বিপর্যয়কর পরিণতির ভয়াবহতাই ফুটিয়ে তোলে। রাশিয়া দীর্ঘদিন ধরে দেশের অভ্যন্তরে তো বটেই বিশেষ করে উত্তর ককেশাসে উগ্রপন্থীদের মোকাবেলা করে যাচ্ছে।

উগ্রপন্থীরা রাশিয়ায় একাধিক সন্ত্রাসী অভিযান চালিয়েছে। পুতিনের মতে ২০২০ সালে রাশিয়ায় অন্তত ৭২টি সন্ত্রাসী ঘটনা প্রতিহত করা হয়েছে। তার মানে ২০১৯ সালের তুলনায় শতকরা পঁচিশ ভাগেরও বেশি সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৯ সালে সাতান্নটি সন্ত্রাসী হামলার প্রস্তুতি অঙ্কুরেই প্রতিহত করা হয়েছে।

পুতিন এই ক্রমবর্ধমান হুমকিকে খুবই গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে তাকে সুসংহত ও ব্যাপকভাবে মোকাবেলা করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। পুতিন বারবার এই ইস্যুটির বিপদ সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সতর্ক করেছেন এবং দেশগুলিকে এই হুমকি মোকাবেলার আহ্বান জানিয়েছেন।

পুতিন বলেন, সন্ত্রাসবাদ বিকাশের গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলির একটি হল পশ্চিমা বিশেষ করে আমেরিকার দ্বিমুখি অবস্থান।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:৪৬
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:২৪
প্রিন্ট করুন printer

প্রতিবেশীর হৃৎপিণ্ড আলু দিয়ে রান্না করে পরিবারের লোককে খাওয়ান তিনি, অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

প্রতিবেশীর হৃৎপিণ্ড আলু দিয়ে রান্না করে পরিবারের লোককে খাওয়ান তিনি, অতঃপর...
অভিযুক্ত লরেন্স পল অ্যান্ডারসন।

আমেরিকার ওকলাহোমার এক ব্যক্তি খুন করেছিল এক নারীকে। তারপর তার হৃৎপিণ্ড কেটে আলুর সঙ্গে রান্না করে পরিবারের দুজনকে খাইয়েছিল। খাওয়ানোর পর তার চাচা ও ৪ বছর বয়সী এক মেয়েকে খুন করে ওই ব্যক্তি। খবর ডেইলি মেইলের।

পরে খুনে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম লরেন্স পল অ্যান্ডারসন।

তদন্তকারীরা গ্রাডি কাউন্টি আদালতে মঙ্গলবার জানিয়েছেন, প্রতিবেশী এক নারীকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন করে লরেন্স। তারপর তার দেহ থেকে হৃৎপিণ্ড বের করে নিয়ে আসে নিজের কাকার বাড়ি। সেখানে আলু দিয়ে ওই হৃৎপিণ্ড রান্না করেছিল লরেন্স।

পরে কাকা, তার স্ত্রীকে তা খেতে দেয়। এরপর কাকা এবং কাকার ৪ বছরের নাতনিকে খুন করে সে। কাকিমাও তার মারে গুরুতর আহত হন। ৯ ফেব্রুয়ারি এই ঘটনা ঘটেছিল বলে তদন্তকারীরা জানিয়েছেন।

তদন্তকারীরা আদালতে আরও জানান, ‘পরিবার থেকে দৈত্য তাড়াতে’ এই কাজ করেছিল বলে লরেন্স জানিয়েছে তাদের। মঙ্গলবার আদালতে নিজের দোষও স্বীকার করেছে অভিযুক্ত।

জানা গেছে, অপরাধের সঙ্গে লরেন্সের যোগাযোগ দীর্ঘদিন। বিভিন্ন কারণে একাধিকবার জেলে গেছেন তিনি। ২০১৭ সালেই মাদক সংক্রান্ত অপরাধে ধরা পড়েছিলেন, তখন থেকে জেলেই ছিলেন। জেল থেকে বেরিয়ে এই ৩ জনকে খুন করেছেন তিনি।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

ইন্দোনেশিয়ায় স্বর্ণখনিতে ধস, ৬ জনের প্রাণহানি

অনলাইন ডেস্ক

ইন্দোনেশিয়ায় স্বর্ণখনিতে ধস, ৬ জনের প্রাণহানি
ফাইল ছবি

ইন্দোনেশিয়ার একটি অবৈধ স্বর্ণখনিতে ভয়াবহ ধসে ঘটনা ঘটেছে। এতে নারীকর্মীসহ অন্তত ৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। একইসঙ্গে ধ্বংস্তুপ থেকে ১৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় সুলাওয়েসী দ্বীপে এ ঘটনা ঘটে। এই দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এখনো সেখানে উদ্ধার অভিযান চলছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় অবৈধ খনি ধসের ঘটনা প্রায়ই ঘটে। গত বছরও সুমাত্রা দ্বীপে ভারী বৃষ্টিতে ভূমিধস হয়। এছাড়া একই বছর ঐ দ্বীপে পরিত্যক্ত স্বর্ণখনিতে ধসে প্রাণহানি হয়েছে।

সূত্র : এবিসি নিউজ।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:৩৬
প্রিন্ট করুন printer

ফেসবুক-গুগল থেকে অর্থ আদায়ে আইন পাস করলো অস্ট্রেলিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফেসবুক-গুগল থেকে অর্থ আদায়ে আইন পাস করলো অস্ট্রেলিয়া

গুগল ও ফেসবুককে নিউজ কনটেন্ট তাদের প্ল্যাটফর্মে প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যমকে অর্থ দিতে আইন পাস করেছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে এ আইন পাস করে অস্ট্রেলিয়া।

নতুন আইনে গুগল ও ফেসবুকের মতো প্ল্যাটফর্মগুলোকে নিউজ কনটেন্ট প্রকাশ করতে হলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে অর্থ দিতে বলা হয়েছে। গুগল বা ফেসবুক তাদের প্ল্যাটফর্মে যে খবরগুলো রাখবে, তার জন্য ওই নির্দিষ্ট সংবাদমাধ্যমকে অর্থ দিতে হবে।

সার্চ ইঞ্জিন গুগল ডিজিটাল মাধ্যমে থাকা যেকোনো খবর খোঁজ করে পাঠকের সামনে তুলে ধরে। ওই সংবাদ গুগলের প্ল্যাটফর্মে থেকে যায়। সংবাদটি বা নিউজ কনটেন্টটি কতবার পড়া বা দেখা হয়েছে, তার ভিত্তিতে সেই সংবাদ বা কনটেন্টের জন্য গুগল বিজ্ঞাপন পেতে শুরু করে। বড় বড় সংস্থা গুগলকে ওই নিউজ কনটেন্টের জন্য বিজ্ঞাপন দেয়। ফেসবুকে বিষয়টি আরো সহজ। এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্ম তাদের নেটওয়ার্কে যে খবরগুলো থাকে, তার জন্য বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করে। যে বিজ্ঞাপন তারা পায়, তার লভ্যাংশ কিন্তু সংশ্লিষ্ট গণমাধ্যমকে দেওয়া হয় না।

এই চিরাচরিত নিয়মটিকে ভেঙে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার নতুন আইন। অস্ট্রেলিয়ার আইন বলছে, কোনো সংবাদমাধ্যম গুগল ও ফেসবুককের প্ল্যাটফর্মে নিউজ কনটেন্ট প্রকাশ করলে তার বিনিময়ে ওই সংবাদমাধ্যমকে অর্থ দিতে হবে। কারণ, গুগল ও ফেসবুক ওই কনটেন্ট থেকে অর্থ রোজগার করছে। যার লভ্যাংশ সংবাদমাধ্যমটিরও প্রাপ্য।

প্রথম থেকেই এই আইনের বিরোধিতা করছে গুগল ও ফেসবুক। সম্প্রতি প্রতীকীভাবে ফেসবুক অস্ট্রেলিয়ায় তাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে সব সংবাদ ও নিউজ কনটেন্ট তুলে নিয়েছিল। যা নিয়ে অস্ট্রেলিয়াজুড়ে বিস্তর আলোচনা-সমালোচনা হয়েছিল। পরে অবশ্য ফেসবুক ফের নিউজ কনটেন্ট ফিরিয়ে আনে। গুগলও হুমকি দিয়ে রেখেছে, নতুন এই আইন চালু হলে তারা অস্ট্রেলিয়া থেকে তাদের প্রাথমিক সার্চ ইঞ্জিন তুলে নেবে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

আইনি তদন্ত চাইলেন পিটিআই নেতাদের হাতে নির্যাতিত সাংবাদিক

অনলাইন ডেস্ক

আইনি তদন্ত চাইলেন পিটিআই নেতাদের হাতে নির্যাতিত সাংবাদিক

পাকিস্তানের চারসাদ্দা প্রেসক্লাবের গভর্নিং বডির সদস্য সাইফুল্লাহ জান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতাদের হাতে যে অত্যাচার ও অপমানের বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছেন।

গত শুক্রবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি দাবি করেন, পিটিআই নেতা আবদুল্লাহ, তার ভাই ফাহিম, জাকাত কমিটির চেয়ারম্যান ইফতিখার এবং অন্য অস্ত্রধারী পুরুষরা তাকে জোরপূর্বক চারসাদ্দা বাজার পিটিআই কার্যালয়ে নিয়ে যান।

দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল সাইফুল্লাহ জানকে উদ্ধৃত করে জানায়, সেখানে তাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করা হয়। বিবস্ত্র করে তার ভিডিও ধারণ করে রাখেন পিটিআই নেতারা। জনগণের চাপে পরে তাকে সেখান থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

ওই সাংবাদিক আরো বলেছেন, জেলা পুলিশ কর্মকর্তা মুহাম্মদ শোয়াইব সরদারি পুলিশ স্টেশনের পুলিশদের আইনিভাবে এ ব্যাপারে মামলা নেওয়ার নির্দেশ দেন। তবে পুলিশ অভিযোগ নিতে দেরি করে এবং আইনের ধারাগুলো যুক্ত করেনি। সূত্র : এএনআই।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর