৭ জুলাই, ২০২২ ০২:১৩

ভয়াবহ খরার কবলে ইতালি

অনলাইন ডেস্ক

ভয়াবহ খরার কবলে ইতালি

বাগানের গাছে মিনারেল ওয়াটার ঢালছেন এক ব্যক্তি

ইতালির বিভিন্ন অঞ্চলে খরার কারণে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার। ইউরোপের দেশটির নানা স্থানে পানীয় জল ক্রমশ দুষ্প্রাপ্য হয়ে উঠছে, জঙ্গল পুড়ে যাচ্ছে এবং ডলোমাইটস হিমবাহ থেকে নাটকীয় খবর শোনা যাচ্ছে।

টুরিনের কাছে সাঙ্গুনি টরেন্ট উপনদীটি পুরোপুরি শুকিয়ে গেছে। খরার মৌসুম দীর্ঘায়িত হওয়ায় পো নদী এবং সেটির ক্যাচমেন্ট এলাকায় স্বাভাবিকের চেয়ে অর্ধেক পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ইতালির উত্তরাঞ্চলের লাইফলাইন হিসেবে পরিচিত এই নদী। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, সেখানে বৃষ্টিপাতের আশু সম্ভাবনা নেই।

টিচিনো নদীর উপর একটির সঙ্গে আরেকটি নৌকা লাগিয়ে লোম্বার্ডির নৌকার সেতু তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু পানি এখন এতটাই শুকিয়ে গেছে যে নদীর অনেকাংশে সেতুটির নিচে আর কোনো পানি নেই।

গাছপালার জন্য মিনারেল ওয়াটার

বাগানের গাছে মিনারেল ওয়াটার ঢালছেন অনেকে। পিডমন্ট এবং লোম্বার্ডি অঞ্চলের ১২৫টি শহরে টেপ ওয়াটার রেশনিং করা শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার খরা জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করেছে। ইতালির উত্তরাঞ্চলে গত কয়েক দশকে এরকম খরা দেখা যায়নি।

পানিস্বল্পতার কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবিলায় আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার।

পাবলিক ফাউন্টেন থেকে কলের পানি সংগ্রহ

মিলানের উত্তরপশ্চিমের লেভোর বাসিন্দারা একটি পাবলিক ফাউন্টেন থেকে জলের পানি সংগ্রহ করছেন। কিছু শহরে গাড়ি ধোয়া, ব্যক্তিগত সুইমিং পুল ব্যবহার এবং বাগানে পানি দেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

ঝুঁকিতে শস্য

ধান উৎপাদনের জন্য অনেক পানির দরকার হয়। কিন্তু নোভারা এবং পাভিয়া অঞ্চলের মাঝের অংশে পানির তীব্র অভাব দেখা দিয়েছে। ফলে অর্ধেক ফসল ঝুঁকির মুখে পড়েছে। অনেক কৃষকের জন্য এটা অস্তিত্বের প্রশ্ন হয়ে উঠতে পারে।

শুকিয়ে গেছে নদী

লিনারোলোতে নদী শুকিয়ে গেছে। পো নদীর পানি গত ৭০ বছরে এতটা কমেনি।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি পাওয়ায় অনেক হিমবাহ গলে যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা কিছুদিন আগে বর্তমান খরার সঙ্গে ডলোমাইটস হিমবাহ গলে যাওয়ার সম্পর্ক খুঁজে পেয়েছেন। চলতি বিপর্যয়ে অন্তত সাত ব্যক্তি প্রাণ হারিয়েছেন।

সূত্র : ডয়চে ভেলে

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর