শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪০

সিনেটের অভিশংসন বিচারে সাক্ষ্য দেবেন না ট্রাম্প

সিনেটের অভিশংসন বিচারে সাক্ষ্য দেবেন না ট্রাম্প

আগামী সপ্তাহে মার্কিন সিনেটে দেশটির সদস্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট শুনানি হওয়ার কথা। আর এ জন্য রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসির আশপাশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের উদ্বেগ ট্রাম্পের উগ্রবাদী অনুসারীরা নির্বাচনের ফলাফলে ক্ষোভ প্রকাশ করে আবারও সহিংসতায় লিপ্ত হতে পারেন। তবে এর মধ্যেই অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়ায় ট্রাম্প সাক্ষ্য দেবেন না বা কোনো লিখিত বিবৃতিও দেবেন না বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী। সিএনএন জানায়, কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের অভিশংসন ম্যানেজারদের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার একটি চিঠি দিয়ে ট্রাম্পকে শপথ নিয়ে ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনা সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল। ট্রাম্পের পক্ষ থেকে সে অনুরোধই প্রত্যাখ্যান করা হলো। ট্রাম্পের মুখপাত্র জ্যাসন মিলার জানান, ‘তিনি (ট্রাম্প) অসাংবিধানিক বিচার প্রক্রিয়ায় কোনো সাক্ষ্য দেবেন না।’ অভিশংসন ম্যানেজার দলের নেতা ডেমোক্র্যাট কংগ্রেস সদস্য জ্যামি রাস্কিনের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছিল, ক্যাপিটলে হামলা উসকে দেওয়ার যে অভিযোগ প্রতিনিধি পরিষদ করেছে ট্রাম্প তা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করায় সিনেটে তাঁর সাক্ষ্য নেওয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। রাস্কিন লেখেন, ‘দুই দিন আগে আপনি একটি জবাব পাঠিয়েছেন। সেখানে আপনি অভিশংসন প্রস্তাবের (আর্টিকেল অব ইমপিচমেন্ট) অনেক সত্য অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আপনার সাংবিধানিক অপরাধ সংঘটনের ভূরিভূরি সুস্পষ্ট প্রমাণ থাকার পরও সমালোচনামূলক তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। সত্য অভিযোগ নিয়ে এই বিতর্ক সৃষ্টির প্রেক্ষাপটে আমি ৬ জানুয়ারির ওই ঘটনা নিয়ে সিনেটে বিচার প্রক্রিয়া চলার সময় কিংবা তার আগে শপথ নিয়ে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য আপনাকে (ট্রাম্প) লিখিত আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।’

সিনেটে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা রয়েছে মঙ্গলবার। রাস্কিন বিশেষত, আগামী সপ্তাহে সোম এবং বৃহস্পতিবারের মধ্যে কোনো এক সময় ট্রাম্পকে এই সাক্ষ্য দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর এই অনুরোধের চিঠি পাওয়ার পরপরই ট্রাম্পের আইনজীবীরা তা প্রত্যাখ্যান করে পাল্টা তিন প্যারার একটি চিঠি লিখে পাঠিয়েছেন। এতে বলা হয়, প্রতিনিধি পরিষদ যে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ করতে পারবে না, রাস্কিনের অনুরোধে সে লক্ষণই প্রকাশ পেয়েছে। তাছাড়া ট্রাম্প এখন আর প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বে না থাকায় তাঁর বিরুদ্ধে সিনেটের বিচার প্রক্রিয়াও অসাংবিধানিক বলে উল্লেখ করেন আইনজীবীরা।


আপনার মন্তব্য