শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৫ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৩

মিয়ানমারে ‘গোপন সরকার’ বিপ্লবের ডাক

গুলিতে আরও ১৪ জন নিহত

Google News

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত সরকারের সংসদ সদস্যরা আত্মগোপনে থেকে ‘অস্থায়ী সরকার’ গঠন করেছেন। এক বিবৃতিতে এই সরকারের পক্ষ থেকে সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে ‘বিপ্লব’ ঘটানোর ডাক দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন এ সরকারকে স্বীকৃতি দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। এদিকে গত শনিবার থেকে গতকাল পর্যন্ত বিক্ষোভকারী জনতার ওপর সেনা ও পুলিশের গুলিবর্ষণে কমপক্ষে ১৪ জন নিহত হয়েছেন। রয়টার্স, বিবিসি, সিএনএন।

খবরে বলা হয়েছে, সেনা অভ্যুত্থানের পর ক্ষমতাচ্যুত এনএলডির যে আইনপ্রণেতারা গ্রেফতার এড়াতে পেরেছেন, তারা পালিয়ে নতুন একটি অস্থায়ী সরকার গঠন করেছেন। এই সরকার গঠনে কর্মরত গ্রুপটির নাম, কমিটি ফর রিপ্রেজেন্টিং পাইডুংসু হলত্তু (সিআরপিএইচ)। সরকারের ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মাহন উইন খিয়াং থান। তিনি এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘এটা জাতির জন্য সবচেয়ে অন্ধকারাচ্ছন্ন মুহূর্ত। তবে খুব তাড়াতাড়ি আলোর দেখা পাওয়া যাবে।’ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চেয়ে লুকিয়ে থাকা এই সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘আমরা ক্ষমতাসীন জান্তার পতন ঘটাতে বিপ্লব চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করছি এবং সবাইকে এই বিপ্লবে শামিল হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’ আরও বলা হয়, এখন থেকে ‘অন্তর্বর্তী জনপ্রশাসন দল’ মিয়ানমারের সরকারি প্রশাসন পরিচালনা করবে। সামরিক কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চলবে।  পাশাপাশি এক ফেসবুক বার্তায় মাহন উইন খিয়াং থান বলেছেন, ‘এটা এমন একটা সময় যখন অন্ধকারের বিরুদ্ধে আমাদের নাগরিকদের লড়াই করার ক্ষমতার পরীক্ষা হচ্ছে। অতীতে আমাদের মধ্যে বিভেদ থাকলেও এখন অবশ্যই আমাদের হাতে হাত ধরে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।’ অন্যদিকে এই সরকার গঠন সম্পর্র্কে মিয়ানমার সেনাবাহিনী বলেছে, ‘এটা রীতিমতো রাষ্ট্রদ্রোহিতা।’

নিহত আরও ১৪ জন : সেনা অভ্যুত্থানের পর গত শনিবার অন্যতম রক্তাক্ত দিন  দেখেছে মিয়ানমার। এ দিন অন্তত ১৪ জন নিহত হয়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা ও স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে। দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালয়ে প্রতিবাদকারীদের অবস্থান ধর্মঘটে পুলিশের গুলিতে পাঁচজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।