শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

আফগান সমস্যার সমাধানমন্ত্র জাতিসংঘের হাতে নেই

আফগান সমস্যার সমাধানমন্ত্র জাতিসংঘের হাতে নেই

গুতেরেস

শত বছরের জঞ্জালে যুক্ত আফগানিস্তান। সেই সমস্যা সমাধানের তাৎক্ষণিক দাওয়া জাতিসংঘের হাতে নেই। আর এই সমস্যা জাতিসংঘ একাই সমাধান করতে পারবে বলে মনে করা একটি উদ্ভট কল্পনা। এই মন্দব্য করেছেন মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। তিনি আরও বলেছেন, আফগানিস্তানে অধিক সংখ্যক অংশগ্রহণমূলক সরকার প্রতিষ্ঠায় মধ্যস্থতা করার সুযোগও সীমিত। তবু আফগান জনগণের জন্য তিনি তালেবানদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

২০ বছরের মার্কিন যুদ্ধের শেষে ঠিক এক মাস আগে অর্থাৎ গত ১৫ আগস্ট তালেবানরা আফগানিস্তান দখল করে নেয়। পশ্চিমা সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশ থেকে পালিয়ে যান। এই ক্ষমতা দখলের এক মাস পার হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জাতিসংঘ মহাসচিবের সাক্ষাৎকার নেয়। তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, আফগানিস্তানকে মেরামতের জন্য কোনো চাপ অনুভব করছেন কি না? জবাবে গুতেরেস বলেন, আমি মনে করি সবার মধ্যে একটা প্রত্যাশা সৃষ্টি হয়েছে জাতিসংঘের প্রভাব নিয়ে। 

২০ বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোটের আগ্রাসনের পর এ সময়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে আল-কায়েদার প্রয়াত প্রধান ওসামা বিন লাদেনকে আশ্রয় দেওয়া তালেবান সরকারকে উৎখাত করেছে তারা। যুক্তরাষ্ট্র এক্ষেত্রে খরচ করেছে এক ট্রিলিয়ন ডলার। তারা অবশেষে দেখতে পেয়েছে তাদের সমর্থিত আফগান সরকার এবং সেনাবাহিনী তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ছে। আগামী সপ্তাহে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের বার্ষিক সাধারণ অধিবেশন। সেখানে বিশ্ব নেতারা সমবেত হবেন। তার আগে জাতিসংঘ মহাসচিব ওইসব দেশকে উদ্দেশ করে বলেছেন, তারা যখন এসব রিসোর্স ব্যবহার করে আফগানিস্তানের সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হয়েছে, তখন ওই পরিমাণ শক্তি ও অর্থ ছাড়া আমরা     সমস্যার সমাধান করতে পারব এমনটা ভাবা উদ্ভট কল্পনা। এ সমস্যা তারা দুই দশকেই সমাধান করতে পারেননি। তবে দেশটি যে মানবিক বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে তার জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু    জাতিসংঘ করবে। তিনি আরও মন্তব্য করেছেন, জাতিসংঘ তালেবানদের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে। কিন্তু ইসলামিক এই আন্দোলনকারীরা আফগানিস্তানে নতুন সরকার গঠনে কখনই জাতিসংঘের ভূমিকা মেনে নেবেন না।

সর্বশেষ খবর