শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জুন, ২০১৮ ২৩:৪৫

সুদহার কমানোর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই

—এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম

সুদহার কমানোর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই

ব্যাংক ঋণে সুদের হার কমানোর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম। তার মতে, আমানতের সুদহার না কমিয়ে ঋণের সুদহার কমানো উচিত। আমানতের সুদহার কমালে ব্যাংকগুলো অর্থ সংকটে পড়বে। সে সংকট বেসরকারি বিনিয়োগেও পড়বে।

সরকার ও বেসরকারি ব্যাংকগুলো পৃথকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্যাংক ঋণ ও আমানতের সুদহার কমানোর উদ্যোগ প্রসঙ্গে গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম আরও বলেন, ব্যবসায়ী মহল থেকে সুদের হার কমানোর দাবি ছিল অনেক দিন থেকেই। সেই দাবিটাই পূরণ হতে যাচ্ছে বলে আশা করা যায়। এ উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই। তবে ঋণের সঙ্গে সঙ্গে যেন আমানতের সুদহার না কমে। আমানতের সুদহার কমলে ক্ষতি হবে। দেশের বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ মনে করেন, ব্যাংকগুলোতে আমানতের সুদহার কমে গেছে। আমানতের সুদের যে হার এখন আছে, তা প্রায় মূল্যস্ফীতির সমান। তাই আমানতকারীদের অর্থ ব্যাংকে রাখা হলে মুনাফার কিছুই হবে না। সুদহার যদি আরও কমে তাহলে ব্যাংকগুলোতে আমানতের প্রবাহ কমে যেতে পারে। এতে ব্যাংকগুলোর ঋণ দেওয়ার সক্ষমতা কমে যাবে। সেটা বেসরকারি খাতের বিনিয়োগের জন্য কাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি নয়। ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, আমানতের সুদহার না কমিয়ে ঋণের সুদহার কমানো উচিত।

আমানতের সুদহার কমালে ব্যাংকগুলো ঋণ দিতে পারবে না। আর ব্যাংকগুলো ঋণ দিতে না পারলে বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বেসরকারি খাতে বিনিয়োগের জন্য সুদের হার একটা উপাদান, তবে আরও কিছু উপাদান আছে। যেমন অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ ইত্যাদি জায়গায় তো কিছু দুর্বলতা আছেই। তার পরও যদি ব্যাংকগুলো আমানত প্রবাহ কম হওয়ার কারণে ঋণ কমিয়ে দিতে বাধ্য হয় তাহলে বেসরকারি বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর