Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২০

সর্বোচ্চ আদালতেও সেই বনের রাজার সাজা বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

সর্বোচ্চ আদালতেও সেই বনের রাজার সাজা বহাল

দুর্নীতির দায়ে আলোচিত সাবেক প্রধান বন সংরক্ষক ওসমান গনির ১২ বছরের কারাদন্ড বহাল রেখেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। গতকাল বিচারপতি মো. ইমান আলীর নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন সদস্যের বেঞ্চ জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় লিভ টু আপিল খারিজ করে দিয়েছে। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। ওসমান গনির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন। খুরশীদ আলম খান পরে সাংবাদিকদের বলেন, আসামি ওসমান গনির লিভ টু আপিল খারিজ করেছে আপিল বিভাগ। এর ফলে আগের সাজার রায়ই বহাল থাকল। বিগত সেনানিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের মধ্যে ২০০৭ সালের ২৯ মে ওসমান গনির উত্তরার বাসায় অভিযান চালিয়ে যৌথবাহিনীর সদস্যরা ৯৯ লাখ ৮৯ হাজার ৬০০ টাকা, ১৩০০ ডলার, ৩ হাজর মালয়েশিয়ান রিংগিট ও প্রচুর স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করে। ওই সময় ঘটনাটি দেশে আলোড়ন তোলে। ওসমান গনি পরিচিতি পান ‘বনের রাজা’ বা ‘বনখেকো’ হিসেবে। ওই বছর ২৬ জুলাই দুদক রাজধানীর উত্তরা থানায় মামলা দায়ের করে। মামলায় অভিযোগ করা হয়, ওসমান গনি ঘোষিত আয়ের বাইরে ৪ কোটি ৯৬ লাখ ৮১ হাজার ৪৬৪ টাকার সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। এ ছাড়া দুদকে দাখিল করা সম্পত্তির হিসাব বিবরণীতে এক কোটি দুই লাখ ৫৩ হাজার টাকার সম্পত্তির তথ্য গোপন করেছেন। বিচার শেষে ২০০৮ সালের ৫ জুন রায় ঘোষণা করে বিচারিক আদালত। দুর্নীতির দায়ে গনিকে ১২ বছরের কারাদে র পাশাপাশি ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদ  দেন বিচারক। স্বামীকে দুর্নীতিতে সহযোগিতা করার দায়ে ওসমান গনির স্ত্রী মহসিন আরা গনিকে তিন বছরের কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করে আদালত। রায়ের বিরুদ্ধে ওসমান গনি আপিল করলে হাই কোর্ট তা খারিজ করে দেয়। ফলে সাজার রায়ই বহাল থাকে। হাই কোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল (আপিলের আবেদন) করেন ওসমান গনি। গতকাল সেই আবেদনও খারিজ হয়ে যায়।


আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর