শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:২৯

হেভিওয়েটদের লড়াই আজ

নয়াদিল্লি ও কলকাতা প্রতিনিধি

হেভিওয়েটদের লড়াই আজ

কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আজ ভারতে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে।

এ দফায় দেশজুড়ে ১২ রাজ্যের ৯৫টি আসনে ভোট নেওয়া হবে। এর মধ্যে রয়েছে তামিলনাড়ু (৩৮), কর্ণাটক (১৪), মহারাষ্ট্র (১০), উত্তর প্রদেশ (৮), উড়িষ্যা (৫), আসাম (৫), বিহার (৫), পশ্চিমবঙ্গ (৩), ছত্তিশগড় (৩), জম্মু-কাশ্মীর (২), পডুচেরি (১), মণিপুর (১)টি আসন। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় প্রতিটি কেন্দ্রেই নির্বাচনী প্রচারণা শেষ হয়।

এ দফায় ৯৭টি আসনের ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ২টি আসনে ত্রিপুরা রাজ্যের ‘ত্রিপুরা পূর্ব’ ও তামিলনাড়ুর ‘ভেলোর’ আসনের  নির্বাচন বাতিল করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার কারণে ত্রিপুরা পূর্ব আসনে ২৩ এপ্রিল ভোট হবে। অন্যদিকে ভেলোর কেন্দ্রের ডিএমকে প্রার্থীর কার্যালয় থেকে প্রচুর অর্থ উদ্ধারের পর ওই কেন্দ্রেও নির্বাচন স্থগিত রাখা হয়েছে।

আজ সাড়ে ১৫ কোটির বেশি লোক তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ভোট গ্রহণ কেন্দ্র (পোলিং বুথ) থাকবে দেড় লাখের বেশি। আজ মোট ১ হাজার ৫০০-এর বেশি প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারণ হবে; যার মধ্যে ২৭ শতাংশ প্রার্থীই আবার কোটিপতি। প্রথম দফায় দেশজুড়ে ৯১টি আসনে ভোট নেওয়া হয়। ভোট পড়ে শতকরা ৬৯.৪৩ শতাংশ। কিন্তু একাধিক নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নির্বাচন পর্ব। অন্ধ্রপ্রদেশের অনন্তপুর জেলায় নির্বাচনী সহিংসতাকে কেন্দ্র করে দুজনের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে। গোটা দেশেই আহত হন ১০ জন। এ ছাড়া ইভিএম বিকল হওয়াকে কেন্দ্র করেও একাধিক ছোটখাটো ঘটনা ঘটে। তাই সেসব ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না হয়, তা ঠেকাতে নির্বাচন কমিশন আরও সতর্কতা অবলম্বন করেছে। এ দফায় হেভিওয়েট প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন কর্ণাটকের টুমকর আসনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী জনতা দল (সেক্যুলার) নেতা এইচ ডি দেবগৌড়া ও মথুরায় বলিউড নায়িকা হেমা মালিনী (বিজেপি)। গতবার এরা দুজনই জয়ী হন। ফতেহপুর সিক্রি আসনে উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বলিউড অভিনেতা রাজ বাব্বর, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিজেপির সদানন্দ দেবগৌড়া, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কংগ্রেসের সুশীল কুমার সিন্ডে, সাবেক মন্ত্রী কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি, ডিএমকে নেত্রী কানিমোঝি, সাবেক মন্ত্রী ডিএমকে প্রার্থী এ. রাজা, সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের পুত্র কংগ্রেস প্রার্থী কার্তি চিদাম্বরম, কংগ্রেসের সুস্মিতা দেব, ডিএমকে প্রার্থী দয়ানিধি মারান, বিজেপির জিতেন্দ্র সিং, কংগ্রেসের তারিক আনওয়ার, পিএমকে প্রার্থী আম্বুমানি রামাদোস প্রমুখ। এদিকে দ্বিতীয় দফায় পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং ও রায়গঞ্জ- এ তিনটি লোকসভা কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হবে। তিনটি কেন্দ্রেই এবার চতুর্মুখী লড়াই হতে চলেছে। তার আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিনভর প্রচারণায় ঝড় তুলেছেন ডান-বাম সব রাজনৈতিক দলের নেতানেত্রীই। কেউ রোড শো, কেউ মাইলের পর মাইল হেঁটে ভোটারদের মন কাড়ার চেষ্টা করেছেন। তেমনি নিজেদের দলের প্রার্থীদের সমর্থনে বিভিন্ন সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জির মতো নেতানেত্রীরা প্রচারণা সেরে গেছেন। জলপাইগুড়ি আসন : তৃণমূল প্রার্থী বিনয় চন্দ্র বর্মণ, বিজেপির জয়ন্ত কুমার রায়, কংগ্রেসের মণি কুমার দার্নেল ও সিপিআইএম প্রার্থী ভগীরথ চন্দ্র রায়। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৭ লাখ ২৯ হাজার ৮২৯ জন। মোট পোলিং বুথের সংখ্যা ১ হাজার ৮৬৮। দার্জিলিং আসন : তৃণমূলের অমর সিং রাই, বিজেপির রাজু বিস্ত, কংগ্রেসের শঙ্কর মালাকার ও সিপিআইএমের প্রার্থী সমন পাঠক। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার রয়েছেন ১৬ লাখ ২৮ হাজার ৫৩৫ জন। বুথ ১ হাজার ৬২৩টি।

রায়গঞ্জ কেন্দ্র : তৃণমূলের প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়াল, বিজেপির দেবশ্রী চৌধুরী, কংগ্রেসের দীপা দাশমুন্সি ও সিপিআইএমের প্রার্থী মহম্মদ সেলিম। এ কেন্দ্রে মোট ভোটারের সংখ্যা ১৪ লাখ ২৭ হাজার ৫৬৭। থাকছে ১ হাজার ৫৩০টি ভোট গ্রহণ কেন্দ্র।

তিনটি আসনে মোট প্রার্থী ৩৭ জন।

ভারতে এবার মোট সাত দফায় (১১, ১৮, ২৩, ২৯ এপ্রিল এবং ৬, ১২ ও ১৯ মে) ৫৪৩টি আসনের জন্য ভোট নেওয়া হবে। এবারের লোকসভা নির্বাচনে মোট ভোটার ৯০ কোটির মতো। নতুন ভোটার ১ কোটি ৬০ লাখ। ভোট গণনা ২৩ মে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর