Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৬

ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে ক্ষোভ-বিক্ষোভ, মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে ক্ষোভ-বিক্ষোভ, মানববন্ধন
জাহাঙ্গীরনগর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বিক্ষোভ-বাংলাদেশ প্রতিদিন

উন্নয়ন প্রকল্পের টাকা ভাগাভাগি, ভর্তিতে অনিয়ম এবং শিক্ষার্থী বহিষ্কারের ঘটনায় উত্তাল হয়ে উঠেছে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে চলছে ক্ষোভ-বিক্ষোভ। মিছিল, মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশে এসব অনিয়মের  বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। আমাদের জেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় : ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের সান্ধ্য কোর্সে নিয়মবহির্ভূতভাবে ভর্তি হওয়া ছাত্রলীগের ৩৪ নেতা-কর্মীর ভর্তি বাতিল এবং এর সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াতপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে এক মানববন্ধনে এ দাবি জানান তারা। মানববন্ধনে সাদা দলের আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম বলেন, কখনো কখনো ছোটখাটো ত্রুটি-বিচ্যুতি ঘটলেও এত দিন পর্যন্ত সাধারণভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া বিতর্কের ঊর্ধ্বে ছিল। কিন্তু কয়েক বছর ধরে এই ভর্তি পরীক্ষাকেও বিতর্কিত করা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে মার্চ মাসে অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচন সামনে রেখে সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন সমর্থক একটি ছাত্র সংগঠনের সাবেক ও বর্তমান ৩৪ জন নেতাকে বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ব্যাংকিং অ্যান্ড ইনস্যুরেন্স বিভাগের অধীনে পরিচালিত ‘মাস্টার্স অব ট্যাক্স ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রামে’ ভর্তি পরীক্ষা না নিয়ে অবৈধ প্রক্রিয়ায় ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে অনুষদের ডিনের ব্যাখ্যাকে অগ্রহণযোগ্য আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘অবৈধ ও অন্যায় একটি কাজকে নিয়মসিদ্ধ বলে তাদের দেওয়া ব্যাখ্যা আমরা প্রত্যাখ্যান করছি।’ মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে সাদা দলের সাবেক আহ্বায়ক মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক আখতার হোসেন খান, সাবেক আহ্বায়ক ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান, যুগ্ম-আহ্বায়ক পরিসংখ্যান বিভাগের চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান, ফিন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় : উন্নয়ন প্রকল্পের টাকা থেকে ছাত্রলীগকে ‘ঈদ সেলামি’র নামে কোটি টাকা দেওয়ার অভিযোগে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে চলমান রয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একাংশের আন্দোলন। পদত্যাগের জন্য উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামকে ১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারের আন্দোলনকারীরা। উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে গতকালও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে তারা। বেলা ১টায় পূর্বঘোষিত বিক্ষোভ মিছিল শেষে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের কার্যকরী সদস্য রাকিবুল রনি উপাচার্যকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘জাবির যেসব ছাত্রলীগ নেতা চাঁদাবাজির টাকা পেয়েছেন, তারা স্বীকার করেছেন যে উপাচার্য ছাত্রলীগ নেতাদের হলে টাকা পৌঁছে দিয়েছেন। এ লজ্জা আমরা আর রাখতে পারি না। আপনাকে (উপাচার্য) বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।’ এদিকে আগামী রবিবার থেকে শুরু হয়ে জাবির প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে ১ অক্টোবর। ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে আন্দোলনের কর্মসূচির কথা উল্লেখ করে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্য মঞ্চের মুখপাত্র দর্শন বিভাগের অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, ‘আমরা উপাচার্যের পদত্যাগ চেয়েছি, কারণ উপাচার্য উন্নয়ন প্রকল্পকে ব্যবসা ক্ষেত্রে পরিণত করেছেন। বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে দাবি না মানলে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে উপাচার্যের পদত্যাগ নিশ্চিত করতে বাধ্য হবো আমরা।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিনের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উপচার্যের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন শিক্ষার্থীরা। বুধবার রাত ১২টার দিকে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, উপাচার্যের মেয়াদে নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকরা জামায়াত-বিএনপি করেন। উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ডেইলি সানের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বহিষ্কারের প্রতিবাদে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা আন্দোলন শুরু করেন। আন্দোলনের মুখে জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল শিক্ষার্থীদের করা ১৪টি দাবি মেনে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অফিস আদেশ জারি করেছে। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি গতকাল ক্যাম্পাসে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। এ ব্যাপারে উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিন বলেন, শিক্ষার্থীদের করা ১৪টি দাবি ইতিমধ্যে মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারা পরিস্থিতি ঘোলাটে করার জন্য এবং সরকারকে বিব্রত অবস্থায় ফেলতে আন্দোলন করছে।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় : বশেমুরবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিক বহিষ্কার, হয়রানি ও হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (বাকৃবিসাস)। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে ওই মানববন্ধন করা হয়।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় : বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থী ও কর্মরত সাংবাদিক ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কারের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)। এ ছাড়া ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত আরেক সাংবাদিক শামস জেবিনের ওপর হামলার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন তারা। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। কুবিসাস সাধারণ সম্পাদক তানভীর সাবিকের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন সমিতির সভাপতি জাহিদুল ইসলাম।

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (হাবিপ্রবিসাস)। বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্ট ফেডারেশনের ডাকে মানববন্ধন ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। গতকাল হাবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির আয়োজনে দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মো. আবদুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুর রবসহ সমিতির অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় : ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কারের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (শেকৃবিসাস)। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে শেকৃবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মহিবুল আলম সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক রাকিব খানসহ সমিতির অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর