শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:১০

শেষ হলো ঢাকা লিট ফেস্ট

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

শেষ হলো ঢাকা লিট ফেস্ট

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে প্রভাবিত সারা দেশ। দিনভর বৃষ্টির হানায় সাহিত্যের উৎসব ছিল অনেকটা সাদামাটা। বৃষ্টির কারণে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ সাহিত্যানুরাগীদের পদচারণে গত দুই দিনের মতো মুখরিত না থাকলেও সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত মিলনায়তন, লন চত্বর ও টেন্টজুড়ে ছিল সাহিত্যের আলাপচারিতা। বিভিন্ন সেশনে সাহিত্যের জয়গান গাওয়ার মধ্য দিয়ে পর্দা নামল ‘ঢাকা লিট ফেস্ট ২০১৯’-এর।

দক্ষিণ ভারতীয় সাংবাদিক তিশানি দোশির আবৃত্তি ও নৃত্যনাট্যের মধ্য দিয়ে গতকাল শেষ হয় তিন দিনের এ আসর। এরপর বক্তব্য দেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী, সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাশরুর আরেফিন, ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান, সাদাফ সায্? ও ব্রাজিলিয়ান লেখক মারিয়া ফিলোমেনা বৈসো লেপেস্কি। এর আগে তৃতীয় দিনের সকাল শুরু হয় ইসকনের সংগীত দলের ভজন-কীর্তন দিয়ে। সকালে নজরুল মঞ্চে একটি শিশুতোষ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। বইটির নাম ‘সাগরতীরে’। উন্মোচনের পর লেখক নাজিয়া জেবীন বই থেকে  শিশুদের গল্প পড়ে শোনান। একই মঞ্চে পরে ‘দ্য এলিফ্যান্ট ইন দ্য রুম’ বইয়ের লেখক নন্দিতা খান বইটি থেকে শিশুদের গল্প পড়ে শোনান। পরে একই মঞ্চে ওঠেন কার্টিস জবলিং। তিনি শিশুদের বিভিন্ন শব্দজট ও ছবির মাধ্যমে নানা জিনিস শেখান। কয়েকটি গল্পের সঙ্গে অভিনয় করেও দেখান। এ সময় লনে ‘রিভাইভিং দ্য আর্ট অব স্টোরিটেলিং’ শীর্ষক শিশুতোষ আলোচনায় মাদিহা মোরশেদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ চিত্রকর ও অ্যানিমেটর কার্টিস জবলিং, চাইল্ড স্পেশালিস্ট ফ্রান হুরলি, নিউরোসায়েন্টিস্ট নাইলা জামান খান ও সাজিয়া জামান। ‘চাইল্ড কেয়ারিং অ্যান্ড চাইল্ড ল্যাংগুয়েজ ডেভেলপমেন্ট’ ছিল আলোচনার মূল বিষয়। একাডেমির কসমিক টেন্টে ‘পাওয়ার অব পিকচার’ সেশনে উপস্থিত ছিলেন গ্রাফিক নভেলিস্ট ও কার্টুনিস্ট ফাহিম আঞ্জুম এবং চলচ্চিত্র ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা আবরার আখতার। আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে পুলিৎজার পুরস্কারপ্রাপ্ত সাংবাদিক জেফরি গেটেলম্যানের বই ‘লাভ, আফ্রিকা : আ মেমোয়ার অব রোমান্স, ওয়ার অ্যান্ড সারভাইভাল’ নিয়ে লেখক বিশদ আলোচনা করেন। ভারতীয় রাজনীতিক শশী থারুর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সি আর আবরারের আলাপ ছিল সকালের সেশনে। লেখক শশী থারুরের বই নিয়ে আলাপ করার পরিকল্পনা থাকলেও সেটি গড়ায় কাশ্মীর, মোদি ও রামমন্দির ইস্যুতে। এ সময় বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে আয়োজিত ‘সাহিত্য ও সাংবাদিকতা : দ্বৈতসত্তার মিল-অমিল’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের কবি ও সাংবাদিক মৃদুল দাশগুপ্ত, কবি ও দৈনিক সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি, প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সাজ্জাদ শরিফ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নী।

এ সময় ‘অন দ্য রোড : ট্রাভেল রাইটিং উইথ উইলিয়াম ড্যালরিম্পল’ শীর্ষক সেশনে অংশ নেন ইতিহাসবিদ উইলিয়াম ড্যালরিম্পল। এদিকে বেলা ৩টায় জীবন ও পেশার গল্প নিয়ে আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মঞ্চে বসেন মঞ্চ ও ব্যক্তি জীবনের জুটি ফেরদৌসী মজুমদার ও রামেন্দু মজুমদার।


আপনার মন্তব্য